সমভ্রম লুটে নেওয়ার পর বিয়ে করছেন না প্রেমিক!

বনলতা নিউজ ডেস্ক.বনলতা নিউজ ডেস্ক.
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ১২:২৮ PM, ১৯ মে ২০২০

গুরুদাসপুর (নাটোর) প্রতিনিধি.
দীর্ঘদিন শারিরিক দৌহিক সম্পর্কের পর প্রেমিকের হাত ধরে ঘর ছেড়েছেন  স্নাতক (পাস) কোর্সে অধ্যায়নরত এক শিক্ষার্থী (২২)। সঙ্গে নিয়ে ছিলেন কৃষক বাবার জমানো সাড়ে তিন লাখ টাকা। আমোদ আলীর ছেলে প্রেমিক শফিকুল ওই ছাত্রীকে নিয়ে পাশের বড়াইগ্রাম উপজেলার বনপাড়ায় একটি ভাড়া বাড়িতে অবস্থান করেন ৭ দিন।
এরপর সুকৌশলে সাড়ে তিন লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়ে ভুক্তভোগি ওই ছাত্রীকে ফেলে নিরুদ্দেশ হয়েছেন প্রেমিক শফিকুল। এখন ওই ছাত্রী বিয়ের দাবিতে মঙ্গলবার সকাল থেকে প্রেমিক শফিকুলের বাড়িতে অবস্থান করছেন। নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলার নাজিরপুর ইউনিয়নের বেড়গঞ্জারামপুর গ্রামে ওই ঘটনা ঘটেছে। অভিযুক্ত প্রেমিক শফিকুল ও ভুক্তভোগি ওই ছাত্রীর বাড়ি একই গ্রামে। ভুক্তভোগী ওই ছাত্রী বিলচলন শহীদ সামসুজ্জোহা সরকারি কলেজের ডিগ্রী শেষ বর্ষের শিক্ষার্থী।
ভুক্তভোগী ওই ছাত্রী অভিযোগ করেন- প্রেমিক শফিকুল দীর্ঘদিন ধরে বিয়ের প্রলোভনে একাধিকবার শারিরিক সম্পর্ক করেছেন। সবশেষ প্রেমিকের পরামর্শে বাড়ি থেকে সাড়ে তিন লাখ টাকা নিয়ে বাড়ি ছেড়ে ছিলেন তিনি। কিন্তু সাত দিন আমার সাথে  সহঅবস্থানের  চা পান করার কথা বলে আমাকে রেখে ওই টাকা নিয়ে পালিয়ে যায় শফিকুল। এখন তিনি বিয়ের দাবি নিয়ে প্রেমিকের বাড়িতে অবস্থান করছেন।
অভিযুক্ত প্রেমিক শফিকুল পলাতক থাকায় তার পরিবারের লোকজনের কোন বক্তব্য পাওয়া যায়নি।
গুরুদাসপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. মোজাহারুল ইসলাম বলেন- বিষয়টি দুঃখজনক। লিখিত অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আপনার মতামত লিখুন :