“বৃষ্টি” বিচিত্র রুপে মানুষের জাগ্রত অনুভুতির বহিঃপ্রকাশ

বনলতা নিউজ ডেস্ক.বনলতা নিউজ ডেস্ক.
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৩:৫০ PM, ০৫ জুন ২০২০

‘মো, আনিসুর রহমান

বৃষ্টি’ বিচিত্র রূপে মানুষের জাগ্রত অনুভূতির বহিঃপ্রকাশ।।

~বৃষ্টি কারো হৃৎপিণ্ডের স্পন্দন, হৃদয়ের ঝংকার, কিন্তু কারো বিতৃষ্ণা জীবনের একডালা জ্বালাময়ী অভিশাপ।
~কেউ বৃষ্টি বিলাস করে বিলাসবহুল সুরম্য অট্টালিকার ছাঁদে, আর কেউবা কর্দমাক্ত ভঙ্গুর রাস্তায় অথবা জলহীন-সিঁড়িহীন পুকুর ঘাটে।
~বৃষ্টি এলেই কারো নিঃশব্দে কান্নার রোল পড়ে যায় টিনহীন-বেড়াহীন নাজুক কুঁড়েঘরে, অথচ কেউ ব্যস্ত থাকে নির্মানাধীন বিল্ডিং ভেজাতে, অধিকতর মজবুত করোনে।
~বৃষ্টি এলে কারো কাব্যের বিচ্ছুরিত শব্দগুলো ছন্দে ছন্দ মিলিয়ে কুচকাওয়াজ করতে করতে জড়ো হয় বাক্যে, আর কারো জীবনে রূধির ধারার মতো অঝোরে ঝড়ে পড়ে নেত্রজল হয়ে।
~বৃষ্টি কারো পুরনো স্মৃতিকে স্মৃতির অগ্রভাগে এনে অনিশ্চিত ভবিষ্যতের পথ সুগম করে। কিন্তু কারো আশাজাগানিয়া অনুভূতিকে সতেজ ও জাগরূক করে।
~কারো জীবনে বৃষ্টি এলেই জাগ্রত হয় একবুক অব্যক্ত কষ্টের ইতিহাস, অথচ কেউবা জানান দেয় পুরনো তারছেঁড়া গীটারে, শৈল্পিক মনোভাব নিয়ে।
~বৃষ্টি এলেই কেউ হয়ে যায় কবি, কেউ গায়ক কিংবা নায়ক। কিন্তু কারো জীবনে বৃষ্টি এলেই অনিদৃষ্টকালের তরে রুদ্ধ হয়ে যায় যাবতীয় ইনকামের পথ।

——————-

আপনার মতামত লিখুন :