সাহসী আফগান কিশোরী

বনলতা নিউজ ডেস্ক.বনলতা নিউজ ডেস্ক.
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৬:১২ AM, ২২ জুলাই ২০২০

বনলতা নিউজ ডেস্ক.

একে-৪৭ রাইফেল হাতে এক তালেবান কিশোরীর ছবি এখন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল। এই রাইফেল হাতে নিয়ে তার পিতা-মাতার খুনি দুই তালেবানকে হত্যা করেছে। তার এই সাহসিকতার জন্য চারদিক থেকে প্রশংসায় ভাসছে ওই কিশোরী। এ খবর দিয়ে অনলাইন বিবিসি বলছে, গত সপ্তাহে আফগানিস্তানের ঘোর প্রদেশে তালেবানরা হামলা চালায় ওই কিশোরীর পরিবারে। তার পিতা ছিলেন আফগানিস্তানের সরকার সমর্থক। এ জন্য তালেবান জঙ্গিরা তাদের বাড়ি গিয়ে হানা দেয়। ওই কিশোরীর সামনে তার পিতা-মাতাকে হত্যা করে। কিন্তু মা-বাবার মৃত্যু দেখে বিচলিত হয়নি সে।

তার ভিতর প্রতিহিংসার আগুন জ্বলে ওঠে। প্রতিরোধ গড়ে তোলে। হাতে তুলে নেয় একে-৪৭ রাইফেল। গুলি চালাতে থাকে। এতে দুই তালেবান জঙ্গি নিহত হয়। আহত হয় কয়েকজন। ফলে প্রাণে বেঁচে যায় ওই কিশোরী ও তার এক ভাই। এর পর তালেবান জঙ্গিরা দল বেঁধে ফের তাদের বাড়িতে যায়। কিন্তু গ্রামবাসী ও সরকারি মিলিশিয়ারা প্রতিরোধ গড়ে তোলে। পাল্টা আক্রমণে পালিয়ে যায় তারা। কর্মকর্তারা বলছেন, ওই কিশোরীর বয়স ১৪ থেকে ১৬ বছর হতে পারে। তার ভাইসহ তাকে এখন বাড়ি থেকে অন্যত্র নিরাপদ স্থানে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। বার্তা সংস্থা এএফপির প্রতিবেদন অনুযায়ী, নাজিবা রাহমি নামের একজন ফেসবুক লিখেছেন, তার এমন সাহসের কাছে মাথানত করে শ্রদ্ধা জানাচ্ছি। মোহাম্মদ সালেহ নামে আরেকজন লিখেছেন, আমরা জানি বাবা-মায়ের স্থান অপূরণীয়, কিন্তু তোমার এই বদলা তোমাকে অন্তত কিছুটা শান্তি দেবে।
স্থানীয় সংবাদমাধ্যমগুলোর দেওয়া তথ্য বলছে, সংঘাত কবলিত আফগানিস্তানের পশ্চিমাঞ্চলীয় প্রদেশগুলোর মধ্যে সবচেয়ে অনুন্নত ঘোর প্রদেশ। সেখানে নারীর প্রতি সহিংসতার হারও সর্বোচ্চ। বিদ্রোহী তালেবান ও সরকারি বাহিনীর মধ্যে লড়াইয়ে সেখানকার অনেক সাধারণ মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন।

আপনার মতামত লিখুন :