পাথর ছুঁড়ে যুবককে হত্যা করলো বিএসএফ

বনলতা নিউজ ডেস্ক.বনলতা নিউজ ডেস্ক.
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ১১:৫৯ AM, ০৩ অগাস্ট ২০২০

বনলতা নিউজ ডেস্ক.

ঠাকুরগাঁওয়ে রত্নাই সীমান্তের নাগর নদী থেকে এক যুবকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ওই নিহত যুবকের নাম আল মামুন (২০)। ২ আগস্ট, রবিবার তার লাশ উদ্ধার করা হয়। ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফ পাথর ছুঁড়ে মেরে তাকে হত্যা করে ওই নদীতে ফেলে দেয় বলে জানা গেছে।

নিহত আল মামুন জেলার বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার হরিণমারী ঠকপাড়া গ্রামের সাদেক আলীর ছেলে। আমজানখোর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আকালু ডোঙ্গা এই তথ্য নিশ্চিত করেন।

পুলিশ, নিহতের পরিবার ও স্থানীয়রা জানায়, গত ১ আগস্ট রাতে আল মামুন কয়েকজনের সাথে ওই রত্নাই সীমান্তের ৩৮২ নং পিলার সংলগ্ন এলাকা দিয়ে অবৈধভাবে ভারতে প্রবেশের চেষ্টা করে। এ সময় ভারতের ১৭১ সোনামতি ক্যাম্পের বিএসএফ সদস্যরা মামুনকে লক্ষ্য করে পাথর ছুঁড়তে থাকে। পাথরের আঘাতে মামুনের মৃত্যু হলে নাগর নদীতে লাশ ফেলে দেয়।

আরো জানা গেছে, এরপর রবিবার সকালে স্থানীয়রা নিহত মামুনের লাশ দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দিলে রত্নাই সীমান্তের মারধর এলাকার নাগর নদী থেকে লাশটি উদ্ধার করে পুলিশ। পরে মামুনের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হয়।

এ বিষয়ে ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আকালু ডোঙ্গা জানান, ১ আগষ্ট রাতে মামুনসহ কয়েকজন অবৈধভাবে ভারতে প্রবেশের চেষ্টা করার কারণেই তাকে বিএসএফ’র সদস্যরা পাথর দিয়ে হত্যা করে বলে জানা গেছে। বাকিরা পালিয়ে আসলেও মামুন তাদের হাতেই নিহত হয়।

বালিয়াডাঙ্গী থানার ওসি হাবিবুল হক প্রধান জানান, আমরা ঘটনাস্থল থেকে নিহত মামুনের লাশ উদ্ধার করেছি। লাশ মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট দেখে নিশ্চিত হওয়া যাবে নিহতের কারণ।

বাংলা/এনএস

আপনার মতামত লিখুন :