গুরুদাসপুরে ধান মারাই মেশিনে হাত কাটা পরলো শিশুর

Md MagemMd Magem
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০২:৩৭ PM, ০৭ ডিসেম্বর ২০২০

নিজস্ব প্রতিবেদক.

নাটোরের গুরুদাসপুরে শ্যালো ইঞ্জিন দ্বারা চালিত ধান মারাই মেশিনের ফ্যানের ভেতর শিশু মোঃ আব্দুল রহমান(৪) এর হাত ঢুকে গিয়ে গুরুত্বর জখম হওয়ার ঘটনা ঘটেছে। ঘটনাস্থলেই শিশুর পাঁচটি আঙ্গুল কেটে গিয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার বিয়াঘাট ইউনিয়নের বিয়াঘাট উত্তরপাড়া গ্রামে। আহত শিশু ওই এলাকার মোঃ সানোয়ার হোসেনের ছেলে।

আহত শিশুর বাবা মোঃ সানোয়ার হোসেন জানান, বিয়াঘাট উত্তরপাড়া গ্রামের মোঃ ফজলু সরকার শ্যালো মেশিন দ্বারা চালিত ধান মারাই মেশিন দিয়ে কৃষকদের ধান মারাই কাজ করে থাকে। গত ২৩ নভেম্বর সকাল অনুমান ৯ টায় ঘটিকার সময় বিয়াঘাট উত্তরপাড়া উক্ত ধান মারাই মেশিনের পার্শ্বে দাড়িয়ে থাকা অবস্থায় মেশিনের ফ্যানের ভেতর ডান হাতে ঢুকিয়ে দেয়।

তারপর আমার শিশু ছেলের পাঁচটি আঙ্গুল কেটে গুরুত্বর জখমপ্রাপ্ত হয়। পরে আমার ছেলেকে সেখান থেকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করে চিকিৎসার ব্যবস্থা করলে হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক শিশু আব্দুর রহমানকে ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়।

বর্তমানে আমার শিশু ছেলেকে ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে চিকিৎসাধিন রয়েছে। সেখানে ব্যয়বহুল খরচ বহণ করতে হচ্ছে আমার ছেলের চিকিৎসা বাবদ। আমার আর্থিক অবস্থা ভালো না। আমার পক্ষে আমার ছেলের উন্নত চিকিৎসা করা সম্ভব হচ্ছে না। তবে এঘটনায় ধান মারাই মেশিনের মালিককে অভিযুক্ত করে গুরুদাসপুর থানায় একটি লিখিত অভিযোগও দায়ের করেছেন তিনি। তার দাবি তার ছেলের চিকিৎসার যাবতীয় খরচ মেশিন মালিক বহন করুক।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত ধান মাড়াই মেশিনের মালিক ফজলু সরকার মুঠোফোনে বলেন, ভুলবশত শিশুটি তার মেশিনের কাছে এসে ফ্যানে হাত দিয়েছে। তারপরও ওই শিশুর সার্বিক খোজখবর আমি নিচ্ছি। এছাড়াও তার চিকিৎসা বাবদ খরচ দেওয়ার কথা বলেছি শিশুর পরিবারকে।

আপনার মতামত লিখুন :