গৃহবধূর শরীরে গরম পানি ঢাললেন স্বামী

বনলতা নিউজ ডেস্ক.বনলতা নিউজ ডেস্ক.
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৩:৪৭ PM, ২১ ডিসেম্বর ২০২০

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি.

মৌলভীবাজারে যৌতুকের টাকা না পেয়ে গরম পানি দিয়ে এক গৃহবধূর শরীর ঝলসে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে তার স্বামীর বিরুদ্ধে। গুরুতর আহত অবস্থায় ওই গৃহবধূকে সিলেটের ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। গতকাল রোববার সদর উপজেলার কনকপুর ইউনিয়নের আব্দা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নির্যাতিত ওই গৃহবধূর নাম অনামিকা দেবী। তিনি কনকপুর ইউনিয়নের আব্দা গ্রামের সঞ্জিত কান্তি নাগের স্ত্রী। এ ঘটনায় স্বামী সঞ্জিত কান্তি নাগের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন অনামিকা দেবী।

ভুক্তভোগীর পরিবার জানায়, চার বছর আগে সঞ্জিত কান্তি নাগের সঙ্গে অনামিকা দেবীর বিয়ে হয়। বিয়ের কিছুদিন পর থেকে যৌতুকের দাবিতে বিভিন্ন সময় স্ত্রীকে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন শুরু করেন সঞ্জিত। সর্বশেষ গতকাল সকালে স্ত্রীকে তার বাবার বাড়ি থেকে পাঁচ লাখ টাকা এনে দিতে চাপ দেন।

টাকা আনতে অপারগতা প্রকাশ করলে অনামিকাকে নির্যাতন করেন সঞ্জিত। একপর্যায়ে শরীরে গরম পানি ঢেলে দেন। এতে পিঠসহ শরীরে কিছু অংশ ঝলসে যায়। গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে নেওয়া হয়। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্যে সিলেটের ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

মৌলভীবাজার মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইয়াছিনুল হক বলেন, ‘নির্যাতনের বিষয়ে থানায় একটি অভিযোগ দেওয়া হয়েছে। ঘটনা তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

আপনার মতামত লিখুন :