মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৫ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

২৮ ঘণ্টা পর ভেসে উঠলো শিশু মারিয়ার মরদেহ, মা-বাবার দাফন সম্পন্ন!

  • Reporter Name
  • Update Time : ০৭:৫৫:৫২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৪ অগাস্ট ২০২১
  • ১০২ Time View

বিশেষ প্রতিবেদক নবীনগর.

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগরের তিতাস নদীতে নৌকা উল্টে মারা যাওয়া দম্পতির নিখোঁজ সন্তান মারিয়ার (৭) মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। দীর্ঘ ২৮ ঘণ্টা পর মঙ্গলবার (২৪ আগস্ট) সন্ধ্যা ৬টার দিকে নদীর পাড়ে ভেসে ওসে শিশু মারিয়ার মরদেহ।

এর আগে সোমবার (২৩ আগস্ট) উপজেলার মহল্লা-উরুখুলিয়া এলাকায় স্পিডবোটের ঢেউয়ে উল্টে যায় নৌকাটি। এতে উপজেলার কাইতলা দক্ষিণের দুলাল মিয়ার ছেলে রিয়াদ (৩০) ও তার স্ত্রী লিজা আক্তার (২৫) পানিতে ডুবে মারা যান। এ ঘটনায় নিখোঁজ ছিল তাদের সাত বছরের কন্যাসন্তান মারিয়া। ঘটনার পর পরই উদ্ধার অভিযান শুরু করে নবীনগর দমকল বাহিনীর সদস্যরা।

নবীনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিনুর রশীদ জানান, রিয়াদ, লিজা ও তাদের শিশুসন্তান মারিয়াসহ পরিবার নিয়ে সিলেটে থাকেন। সোমবার তারা নবীনগরে লিজার বোনের বাড়িতে বেড়াতে আসেন। সেখান থেকে অন্যান্য সদস্যদের নিয়ে তিতাস নদীতে নৌকা ভ্রমণে বের হন। মহল্লা-উরুখুলিয়া এলাকার মাঝামাঝি এলে পাশ দিয়ে যাওয়া স্পিডবোটের ঢেউ নৌকাটি উল্টে ডুবে যায়। এ ঘটনায় রিয়াদ ও লিজা পানিতে ডুবে মারা যান। বাকি আরও তিনজন সাঁতরে তীরে উঠে আসেন। তাদের শিশুসন্তান মারিয়াকে খুঁজে পাওয়া যায়নি। পরে দমকল বাহিনীর সদস্যরা উদ্ধার কাজ শুরু করেন। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় শিশুটির মরদেহ নদীর তীরে ভেসে ওঠে।

নবীনগর ফায়ার সার্ভিসের সাব অফিসার শামসুল হক জানান, নিখোঁজ শিশুটিকে উদ্ধারে সোমবার রাত পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে বিরতি দিয়ে মঙ্গলবার সকাল থেকে আবার উদ্ধার অভিযান শুরু হয়। আজ সন্ধ্যায় শিশুটির মরদেহ ভেসে ওঠে। এদিকে মারা যাওয়া দম্পতি রিয়াদ-লিজাকে জানাজা শেষে মঙ্গলবার সকালে দাফন করা হয়েছে।

Tag :
About Author Information

Daily Banalata

Popular Post

২৮ ঘণ্টা পর ভেসে উঠলো শিশু মারিয়ার মরদেহ, মা-বাবার দাফন সম্পন্ন!

Update Time : ০৭:৫৫:৫২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৪ অগাস্ট ২০২১

বিশেষ প্রতিবেদক নবীনগর.

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগরের তিতাস নদীতে নৌকা উল্টে মারা যাওয়া দম্পতির নিখোঁজ সন্তান মারিয়ার (৭) মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। দীর্ঘ ২৮ ঘণ্টা পর মঙ্গলবার (২৪ আগস্ট) সন্ধ্যা ৬টার দিকে নদীর পাড়ে ভেসে ওসে শিশু মারিয়ার মরদেহ।

এর আগে সোমবার (২৩ আগস্ট) উপজেলার মহল্লা-উরুখুলিয়া এলাকায় স্পিডবোটের ঢেউয়ে উল্টে যায় নৌকাটি। এতে উপজেলার কাইতলা দক্ষিণের দুলাল মিয়ার ছেলে রিয়াদ (৩০) ও তার স্ত্রী লিজা আক্তার (২৫) পানিতে ডুবে মারা যান। এ ঘটনায় নিখোঁজ ছিল তাদের সাত বছরের কন্যাসন্তান মারিয়া। ঘটনার পর পরই উদ্ধার অভিযান শুরু করে নবীনগর দমকল বাহিনীর সদস্যরা।

নবীনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিনুর রশীদ জানান, রিয়াদ, লিজা ও তাদের শিশুসন্তান মারিয়াসহ পরিবার নিয়ে সিলেটে থাকেন। সোমবার তারা নবীনগরে লিজার বোনের বাড়িতে বেড়াতে আসেন। সেখান থেকে অন্যান্য সদস্যদের নিয়ে তিতাস নদীতে নৌকা ভ্রমণে বের হন। মহল্লা-উরুখুলিয়া এলাকার মাঝামাঝি এলে পাশ দিয়ে যাওয়া স্পিডবোটের ঢেউ নৌকাটি উল্টে ডুবে যায়। এ ঘটনায় রিয়াদ ও লিজা পানিতে ডুবে মারা যান। বাকি আরও তিনজন সাঁতরে তীরে উঠে আসেন। তাদের শিশুসন্তান মারিয়াকে খুঁজে পাওয়া যায়নি। পরে দমকল বাহিনীর সদস্যরা উদ্ধার কাজ শুরু করেন। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় শিশুটির মরদেহ নদীর তীরে ভেসে ওঠে।

নবীনগর ফায়ার সার্ভিসের সাব অফিসার শামসুল হক জানান, নিখোঁজ শিশুটিকে উদ্ধারে সোমবার রাত পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে বিরতি দিয়ে মঙ্গলবার সকাল থেকে আবার উদ্ধার অভিযান শুরু হয়। আজ সন্ধ্যায় শিশুটির মরদেহ ভেসে ওঠে। এদিকে মারা যাওয়া দম্পতি রিয়াদ-লিজাকে জানাজা শেষে মঙ্গলবার সকালে দাফন করা হয়েছে।