সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৩ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

নিউজিল্যান্ড, ৬০ রানে অলআউট

  • Reporter Name
  • Update Time : ০৬:০৭:৪৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ১ সেপ্টেম্বর ২০২১
  • ৪৭ Time View

বনলতা ডেস্ক.

বাংলাদেশ সফরে টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলতে এসে হোম অব ক্রিকেট মিরপুরের উইকেট নিয়ে অনেক গবেষণা করেছে সফরকারী নিউজিল্যান্ড। কিন্তু প্রথম ম্যাচে বুধবার (১ সেপ্টেম্বর) ব্যাট হাতে টাইগার বোলারদের সামনে পাত্তাই পায়নি কিউই ব্যাটসম্যানরা। ফলে এদিন ১৬. ৫ ওভারে সব উইকেট হারিয়ে ৬০রান তুলতে সক্ষম হয় সফরকারীরা। এর মধ্য দিয়ে নিউজিল্যান্ডকেও সর্বনিম্ন রানের রেকর্ড ‘উপহার’ দিল বাংলাদেশ ক্রিকেট দল।

টি-টোয়েন্টিতে এর আগেও আরও একবার ৬০ রানে অলআউট হওয়ার নজির আছে নিউজিল্যান্ডের। ২০১৪ সালে বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে শ্রীলংকার বিপক্ষে চট্টগ্রাম জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে ১২০ রানের টার্গেট তাড়া করতে নেমে রঙ্গনা হেরাথের স্পিনে বিভ্রান্ত হয়ে ১৫.৩ ওভারে ৬০ রানে অলআউট হয় ব্রান্ডন ম্যাককালামের নেতৃত্বাধীন দলটি। এর আগে গত মাসে অস্ট্রেলিয়ার মতো বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদেরকে এই মিরপুরেই ৬২ রানে গুঁড়িয়ে দিয়েছিল মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের নেতৃত্বাধীন দলটি।

টম লাথাম বাহিনীর দেয়া এই মামুলি লক্ষ্যের জবাবে কিছুক্ষণ পরে ব্যাটিং করবে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ বাহিনী।

এদিন টস জিতে আগে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেন নিউজিল্যান্ডের অধিনায়ক টম লাথাম। কিন্তু ব্যাট হাতে শুরুটা ভালো করতে পারেনি সফরকারীরা। সিরিজের মতো কিউইদের বিপক্ষেও শুরুর ওভারে আসেন অফস্পিনার মেহেদী। তাতে সফলতাও মেলে। ভালো লেংথের বল অভিষিক্ত রবীন্দ্র ঠিকমতো ব্যাট ছোঁয়াতে পারেননি। ফিরতি ক্যাচে রবীন্দ্র ফেরেন শূন্য রানে। তৃতীয় ওভারে সাকিব আল হাসান বোলিংয়ে এলে আবারও উইকেট পতন হয় সফরকারীদের। বোল্ড হয়ে ফেরেন উইল ইয়াং (৫)।

বাংলাদেশের ঘূর্ণিতে ৪ ওভারে ৯ রান তুলতেই তারা হারিয়ে বসে ৪ উইকেট! সেই ধাক্কা সামলে ফিরে গেছেন কিউই অধিনায়ক টম ল্যাথ ব্রেসওয়েল (৩) ও টিকনার শূন্য রান ।

অস্ট্রেলিয়া সিরিজের মতো কিউইদের বিপক্ষেও শুরুর ওভারে আসেন অফস্পিনার মেহেদী। তাতে সফলতাও মেলে। ভালো লেংথের বল অভিষিক্ত রবীন্দ্র ঠিকমতো ব্যাট ছোঁয়াতে পারেননি। ফিরতি ক্যাচে রবীন্দ্র ফেরেন শূন্য রানে। তৃতীয় ওভারে সাকিব আল হাসান বোলিংয়ে এলে আবারও উইকেট পতন হয় সফরকারীদের। বোল্ড হয়ে ফেরেন উইল ইয়াং (৫)।

মারকুটে কলিন ডি গ্র্যান্ড হোম প্রমোশন পেয়ে নেমে বিগ হিটেই মনোযোগী হয়েছিলেন। কিন্তু চতুর্থ ওভারে নাসুমের বলে শেষ রক্ষা হয়নি তার। অভিজ্ঞ অলরাউন্ডার স্লগ সুইপে ধরা পড়েন ডিপ স্কয়ার লেগে। নাসুমের ওভারে বিপর্যয়ে পড়ে যাওয়া কিউইদের পরবর্তী শিকার টম ব্লান্ডেল। বোল্ড হয়ে ২ রানে ফিরেছেন তিনি। পাওয়ার প্লেতে ৪ উইকেট হারিয়ে পুরোপুরি ব্যাক ফুটে চলে যায় কিউইরা। তখন অবশ্য ধাক্কা সামাল দেওয়ার চেষ্টা করেন অধিনায়ক টম ল্যাথাম ও হেনরি নিকোলস। জুটি গড়ে তাতে সফলও হন। কিন্তু তাড়াহুড়ো করে খেলতে গিয়ে উইকেট বিলিয়ে দেন ল্যাথাম। সাইফের বলে পুল করতে গিয়ে ধরা পড়েন কিউই অধিনায়ক।

এর পর অভিষিক্ত কোল ম্যাকনকি নামলেও প্রত্যাশা পূরণ কর পারেননি। সাকিবের ঘূর্ণিতে সহজ ক্যাচ তুলে নেন শর্ট মিডউইকেটে। এর পর থিতু হতে পারেননি হেনরি নিকোলসও। সাইফউদ্দিনের বলে উঠিয়ে মারতে গিয়ে ধরা পড়েন লং অনে। নিকোলস ফেরেন ১৭ রানে। আসা-যাওয়ার মিছিলে এর পর যোগ দেন এজাজ প্যাটেল। মোস্তাফিজুর রহমানের বলে অফস্টাম্প উপড়ে যায় তার।

Tag :
About Author Information

Daily Banalata

Popular Post

নিউজিল্যান্ড, ৬০ রানে অলআউট

Update Time : ০৬:০৭:৪৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ১ সেপ্টেম্বর ২০২১

বনলতা ডেস্ক.

বাংলাদেশ সফরে টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলতে এসে হোম অব ক্রিকেট মিরপুরের উইকেট নিয়ে অনেক গবেষণা করেছে সফরকারী নিউজিল্যান্ড। কিন্তু প্রথম ম্যাচে বুধবার (১ সেপ্টেম্বর) ব্যাট হাতে টাইগার বোলারদের সামনে পাত্তাই পায়নি কিউই ব্যাটসম্যানরা। ফলে এদিন ১৬. ৫ ওভারে সব উইকেট হারিয়ে ৬০রান তুলতে সক্ষম হয় সফরকারীরা। এর মধ্য দিয়ে নিউজিল্যান্ডকেও সর্বনিম্ন রানের রেকর্ড ‘উপহার’ দিল বাংলাদেশ ক্রিকেট দল।

টি-টোয়েন্টিতে এর আগেও আরও একবার ৬০ রানে অলআউট হওয়ার নজির আছে নিউজিল্যান্ডের। ২০১৪ সালে বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে শ্রীলংকার বিপক্ষে চট্টগ্রাম জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে ১২০ রানের টার্গেট তাড়া করতে নেমে রঙ্গনা হেরাথের স্পিনে বিভ্রান্ত হয়ে ১৫.৩ ওভারে ৬০ রানে অলআউট হয় ব্রান্ডন ম্যাককালামের নেতৃত্বাধীন দলটি। এর আগে গত মাসে অস্ট্রেলিয়ার মতো বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদেরকে এই মিরপুরেই ৬২ রানে গুঁড়িয়ে দিয়েছিল মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের নেতৃত্বাধীন দলটি।

টম লাথাম বাহিনীর দেয়া এই মামুলি লক্ষ্যের জবাবে কিছুক্ষণ পরে ব্যাটিং করবে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ বাহিনী।

এদিন টস জিতে আগে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেন নিউজিল্যান্ডের অধিনায়ক টম লাথাম। কিন্তু ব্যাট হাতে শুরুটা ভালো করতে পারেনি সফরকারীরা। সিরিজের মতো কিউইদের বিপক্ষেও শুরুর ওভারে আসেন অফস্পিনার মেহেদী। তাতে সফলতাও মেলে। ভালো লেংথের বল অভিষিক্ত রবীন্দ্র ঠিকমতো ব্যাট ছোঁয়াতে পারেননি। ফিরতি ক্যাচে রবীন্দ্র ফেরেন শূন্য রানে। তৃতীয় ওভারে সাকিব আল হাসান বোলিংয়ে এলে আবারও উইকেট পতন হয় সফরকারীদের। বোল্ড হয়ে ফেরেন উইল ইয়াং (৫)।

বাংলাদেশের ঘূর্ণিতে ৪ ওভারে ৯ রান তুলতেই তারা হারিয়ে বসে ৪ উইকেট! সেই ধাক্কা সামলে ফিরে গেছেন কিউই অধিনায়ক টম ল্যাথ ব্রেসওয়েল (৩) ও টিকনার শূন্য রান ।

অস্ট্রেলিয়া সিরিজের মতো কিউইদের বিপক্ষেও শুরুর ওভারে আসেন অফস্পিনার মেহেদী। তাতে সফলতাও মেলে। ভালো লেংথের বল অভিষিক্ত রবীন্দ্র ঠিকমতো ব্যাট ছোঁয়াতে পারেননি। ফিরতি ক্যাচে রবীন্দ্র ফেরেন শূন্য রানে। তৃতীয় ওভারে সাকিব আল হাসান বোলিংয়ে এলে আবারও উইকেট পতন হয় সফরকারীদের। বোল্ড হয়ে ফেরেন উইল ইয়াং (৫)।

মারকুটে কলিন ডি গ্র্যান্ড হোম প্রমোশন পেয়ে নেমে বিগ হিটেই মনোযোগী হয়েছিলেন। কিন্তু চতুর্থ ওভারে নাসুমের বলে শেষ রক্ষা হয়নি তার। অভিজ্ঞ অলরাউন্ডার স্লগ সুইপে ধরা পড়েন ডিপ স্কয়ার লেগে। নাসুমের ওভারে বিপর্যয়ে পড়ে যাওয়া কিউইদের পরবর্তী শিকার টম ব্লান্ডেল। বোল্ড হয়ে ২ রানে ফিরেছেন তিনি। পাওয়ার প্লেতে ৪ উইকেট হারিয়ে পুরোপুরি ব্যাক ফুটে চলে যায় কিউইরা। তখন অবশ্য ধাক্কা সামাল দেওয়ার চেষ্টা করেন অধিনায়ক টম ল্যাথাম ও হেনরি নিকোলস। জুটি গড়ে তাতে সফলও হন। কিন্তু তাড়াহুড়ো করে খেলতে গিয়ে উইকেট বিলিয়ে দেন ল্যাথাম। সাইফের বলে পুল করতে গিয়ে ধরা পড়েন কিউই অধিনায়ক।

এর পর অভিষিক্ত কোল ম্যাকনকি নামলেও প্রত্যাশা পূরণ কর পারেননি। সাকিবের ঘূর্ণিতে সহজ ক্যাচ তুলে নেন শর্ট মিডউইকেটে। এর পর থিতু হতে পারেননি হেনরি নিকোলসও। সাইফউদ্দিনের বলে উঠিয়ে মারতে গিয়ে ধরা পড়েন লং অনে। নিকোলস ফেরেন ১৭ রানে। আসা-যাওয়ার মিছিলে এর পর যোগ দেন এজাজ প্যাটেল। মোস্তাফিজুর রহমানের বলে অফস্টাম্প উপড়ে যায় তার।