শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

পঞ্চগড়ে ৫ প্রতারণা মামলার আসামী গ্রেপ্তার

  • Reporter Name
  • Update Time : ০৫:১০:১৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ১১ সেপ্টেম্বর ২০২১
  • ২৩ Time View

পঞ্চগড় প্রতিনিধি.
পঞ্চগড়ে ৫ প্রতারণা মামলার আসামী লিয়াকত আলী (৪৫) কে গ্রেপ্তার করেছে পঞ্চগড় সদর থানা পুলিশ। গত শনিবার (১০ সেপ্টেম্বর) রাতে অভিযান চালিয়ে ঠাকুরগাঁও পুলিশের সহায়তায় তাকে থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। প্রতারক লিয়াকতের বাড়ি জেলার সদর উপজেলার কামাত কাজলদিঘী ইউনিয়নের সিপাইপাড়া গ্রামে।

সে ওই এলাকার জয়নুল হকের ছেলে। পুলিশ জানায়, লিয়াকতের বিরুদ্ধে পঞ্চগড় সদর থানায় ৫টি প্রতারণার মামলা রয়েছে। এর মধ্যে দুইটিতে সাজা প্রাপ্ত এবং তিনটিতে তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারী পরোয়ানা জারী রয়েছে। প্রতারক লিয়াকত চাকুরী দেয়ার নামে অনেক মানুষের কাছে টাকা হাতিয়ে নিতো বলে অভিযোগ রয়েছে। পরে প্রতারণার শিকার ৫ ব্যাক্তি তার নামে পঞ্চগড় জেলা ও দায়রা জজ আদালতে তার বিরুদ্ধে প্রতারণার মামলা দায়ের করে।

পঞ্চগড় সদর থানা পুলিশ সুত্রে জানা গেছে, প্রতারক লিয়াকত চাকরী দেয়ার নামে অনেক মানুষের কাছে বিপুল পরিমাণ টাকা হাতিয়ে নেয়। পরে তার বিরুদ্ধে পঞ্চগড় জেলা ও দায়রা জজ আদালতে ৫টি প্রতারণার মামলা দায়ের করেন ৫ ভূক্তভোগী। এসব মামলায় বেশ কিছু দিন ধরে পালিয়ে ছিল লিয়াকত। পরে অভিযান চালিয়ে ঠাকুরগাঁও সদর থানা পুলিশের সহায়তায় তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

একটি মামলার বাদী পক্ষের আইনজীবি তসলিম উদ্দীন জানান, সিরাজুল ইসলাম নামে এক ব্যাক্তির কাছ থেকে ৪ লাখ টাকা ধার নেন প্রতারক লিয়াকত। পরে দীর্ঘ দিনেও টাকা না পেয়ে আদালতে মামলা দায়ের করেন ভূক্তভোগী। ওই মামলায় আদালত পলাতক অবস্থায় তাকে দুই বছরের সাজা দেন।

পঞ্চগড় সদর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) শামসুজ্জোহা সরকার জানান, লিয়াকত নামের ওই ব্যাক্তি বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারী পরোয়ানা থাকা ৫ টি মামলার মধ্যে দুইটিতে সাজা হয়েছিল। শনিবার দুপুরে তাকে আদালতের মাধ্যেমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

Tag :
Popular Post

পঞ্চগড়ে ৫ প্রতারণা মামলার আসামী গ্রেপ্তার

Update Time : ০৫:১০:১৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ১১ সেপ্টেম্বর ২০২১

পঞ্চগড় প্রতিনিধি.
পঞ্চগড়ে ৫ প্রতারণা মামলার আসামী লিয়াকত আলী (৪৫) কে গ্রেপ্তার করেছে পঞ্চগড় সদর থানা পুলিশ। গত শনিবার (১০ সেপ্টেম্বর) রাতে অভিযান চালিয়ে ঠাকুরগাঁও পুলিশের সহায়তায় তাকে থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। প্রতারক লিয়াকতের বাড়ি জেলার সদর উপজেলার কামাত কাজলদিঘী ইউনিয়নের সিপাইপাড়া গ্রামে।

সে ওই এলাকার জয়নুল হকের ছেলে। পুলিশ জানায়, লিয়াকতের বিরুদ্ধে পঞ্চগড় সদর থানায় ৫টি প্রতারণার মামলা রয়েছে। এর মধ্যে দুইটিতে সাজা প্রাপ্ত এবং তিনটিতে তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারী পরোয়ানা জারী রয়েছে। প্রতারক লিয়াকত চাকুরী দেয়ার নামে অনেক মানুষের কাছে টাকা হাতিয়ে নিতো বলে অভিযোগ রয়েছে। পরে প্রতারণার শিকার ৫ ব্যাক্তি তার নামে পঞ্চগড় জেলা ও দায়রা জজ আদালতে তার বিরুদ্ধে প্রতারণার মামলা দায়ের করে।

পঞ্চগড় সদর থানা পুলিশ সুত্রে জানা গেছে, প্রতারক লিয়াকত চাকরী দেয়ার নামে অনেক মানুষের কাছে বিপুল পরিমাণ টাকা হাতিয়ে নেয়। পরে তার বিরুদ্ধে পঞ্চগড় জেলা ও দায়রা জজ আদালতে ৫টি প্রতারণার মামলা দায়ের করেন ৫ ভূক্তভোগী। এসব মামলায় বেশ কিছু দিন ধরে পালিয়ে ছিল লিয়াকত। পরে অভিযান চালিয়ে ঠাকুরগাঁও সদর থানা পুলিশের সহায়তায় তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

একটি মামলার বাদী পক্ষের আইনজীবি তসলিম উদ্দীন জানান, সিরাজুল ইসলাম নামে এক ব্যাক্তির কাছ থেকে ৪ লাখ টাকা ধার নেন প্রতারক লিয়াকত। পরে দীর্ঘ দিনেও টাকা না পেয়ে আদালতে মামলা দায়ের করেন ভূক্তভোগী। ওই মামলায় আদালত পলাতক অবস্থায় তাকে দুই বছরের সাজা দেন।

পঞ্চগড় সদর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) শামসুজ্জোহা সরকার জানান, লিয়াকত নামের ওই ব্যাক্তি বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারী পরোয়ানা থাকা ৫ টি মামলার মধ্যে দুইটিতে সাজা হয়েছিল। শনিবার দুপুরে তাকে আদালতের মাধ্যেমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।