বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৫ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

চুয়াডাঙ্গায় আল্লামা আব্দুস সালাম চাটগামী রহ . এর স্মরণে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল।

  • Reporter Name
  • Update Time : ০২:৩৪:৫৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১
  • ২২৮ Time View

এস এম সাইফুল ইসলাম (চুয়াডাঙ্গা ) থেকে.

মুফতিয়ে আজম, দারুল উলুম মুঈনুল ইসলাম হাটহাজারী মাদরাসার নবনিযুক্ত পরিচালক আল্লামা আব্দুস সালাম চাটগামী রহ. এর জীবন, অবদান ও কর্ম শীর্ষক আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করেছে চুয়াডাঙ্গা জেলা ‘সম্মিলিত ওলামা কল্যাণ পরিষদ’ নামে একটি সংগঠন।

আজ (১৭সেপ্টেম্বর) শুক্রবার সকাল ৭টা থেকে দুপুর ১২ টা পর্যন্ত সদর থানার বেলগাছি, মুসলিমপাড়া জামে মসজিদে এ দোয়া মাহফিলটি অনুষ্ঠিত হয়।

সংগঠনটির মিডিয়া বিষয়ক সম্পাদক মাওলানা সাইফুল ইসলাম সংবাদটি  দৈনিক বনলতাকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

দোয়া মাহফিলে আলোচকরা বলেন, আল্লামা আব্দুস সালাম চাটগামী রহ. আমাদের সকলের প্রিয় একজন বুজুরগী। তিনি আমাদের ছায়ার মতোই ছিলেন। ইতিপূর্বে আল্লামা শাহ আহমদ শফী রহ.,আল্লামা জুনাইদ বাবুনগরী রহ. আমাদেরকে ছেড়ে  চির বিদায় নিয়েছেন । তার ইন্তেকালের ২০ দিনের মাথায় আল্লামা চাটগামী রহ ও আমাদেরকে ছেড়ে চলে গেলেন । হুজুরের ইন্তেকালে আমরা অভিভাবক হারা হয়ে গেছি। স্বল্প সময়ের ভিতর আমাদের রাহবারদের হারিয়ে আমরা বাকরুদ্ধ।

বক্তারা বলেন , ওলামায়ে দেওবন্দ তথা আকাবীরদের ধারাবাহিকতায় আল্লামা আব্দুস সালাম চাটগামী (রহ.) ও একি আদর্শ প্রতিষ্ঠার চেষ্টা করে গেছেন। তার রেখে যাওয়া আদর্শগুলো বাস্তবায়ন করা বর্তমান তাওহীদি জনতা বিশেষত ওলামায়ে কেরামের নৈতিক কর্তব্য।

আল্লামা আব্দুস সালাম চাটগামী রহ. শুধু একটি নামই নয়,একটি প্রতিষ্ঠান, একটি আদর্শ ,একটি ইতিহাস। যিনি ছিলেন একাধারে শায়খুল হাদীস, লিখক,গবেষক,আলোচক,আমিরে হেফাজত,সর্বোপরি গোটা মুসলিম জাতীর রাহবার,আল্লাহ তায়ালা তাঁকে জান্নাতুল ফেরদৌসের আ’লা মাকাম দান করুন। আল্লামা চাটগামী রহ. এর ইন্তেকালে বিশাল এক ইতিহাসের পরিসমাপ্তি ঘটেছে। মুসলিম উম্মাহ হারিয়েছে দ্বীনের জন্য নিবেদিতপ্রাণ। তাঁর মৃত্যুতে ইসলামি অঙ্গনে যে শূণ্যতার সৃষ্টি হয়েছে তা  পূরণ হবার নয়। আল্লামা চাটগামী রহ. চলে গেলেও তাঁর রেখে যাওয়া আদর্শে তিনি যুগের পর যুগ অমর হয়ে থাকবেন।

সর্বশেষ বক্তারা আরো বলেন, মুফতী আব্দুস সালাম চাটগামী (রহ.) চিঠির উত্তরে বলেছিলেন, ‘ যেই (ভূট্টোর) নারী নেতৃত্বের বিরুদ্ধে আমি ফতওয়া দেই, সেই ভূট্টোর অধীনে আমি কিভাবে চাকুরী করতে পারি! সুপ্রিমকোর্টের বিচারপতির এই পদ আমার প্রয়োজন নেই’। আল্লামা মুফতী আব্দুস সালাম চাটগামী রহিমাহুল্লাহু ছিলেন পদ-পদবী ও দুনিয়া বিমুখ নিভৃতচারী একজন ফকিহ, আল্লাহর ওলী। আল্লাহ তায়া’লা হযরতকে জান্নাতে উঁচু মাকাম দান করুন।

আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনটির সভাপতি মাওলানা বশির আহমাদ। সাধারণ সম্পাদক মাওলানা শফিকুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক হাফেজ মাওলানা সরওয়ার হুসাইন, মাওলানা সাইফুল ইসলাম, মাওলানা জুনাইদ আল হাবিব, মাওলানা ফয়জুল্লাহ, মাওলানা আক্তারুজ্জামান, মাওলানা আমির খসরু, মাওলানা আবু তালহা সুরুজ, মাওলানা জামাল উদ্দিন সহ সংগঠনের সকল নেতৃবৃন্দ।

উল্লেখ্য যে, গত (৮ সেপ্টেম্বর) বুধবার সকাল ১০টায় হাটহাজারী মাদরাসার শুরা বৈঠক চলছিলো।শুরার বৈঠকে হাটহাজারী মাদরাসার মহাপরিচালক হিসেবে আল্লামা চাটগামীকে নিয়োগ দেয়া হয়। এ দায়িত্ব আনুষ্ঠানিকভাবে বুঝিয়ে দিতে শুরায় আংশগ্রহন করতে ডেকে পাঠানো হয়। এর পরপরই সাড়ে ১১টার দিকে হঠাৎ অজ্ঞান হয়ে যান। অ্যাম্বুলেন্স যোগে স্থানীয় হাটহাজারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। একই দিনে রাত ১১টায় হাটহাজারী মাদরাসা মাঠে জানাযা নামাজ শেষে ‘মাকাবারায়ে জামিয়া’তে দাফন করা হয়।

Tag :
About Author Information

Daily Banalata

Popular Post

চুয়াডাঙ্গায় আল্লামা আব্দুস সালাম চাটগামী রহ . এর স্মরণে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল।

Update Time : ০২:৩৪:৫৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১

এস এম সাইফুল ইসলাম (চুয়াডাঙ্গা ) থেকে.

মুফতিয়ে আজম, দারুল উলুম মুঈনুল ইসলাম হাটহাজারী মাদরাসার নবনিযুক্ত পরিচালক আল্লামা আব্দুস সালাম চাটগামী রহ. এর জীবন, অবদান ও কর্ম শীর্ষক আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করেছে চুয়াডাঙ্গা জেলা ‘সম্মিলিত ওলামা কল্যাণ পরিষদ’ নামে একটি সংগঠন।

আজ (১৭সেপ্টেম্বর) শুক্রবার সকাল ৭টা থেকে দুপুর ১২ টা পর্যন্ত সদর থানার বেলগাছি, মুসলিমপাড়া জামে মসজিদে এ দোয়া মাহফিলটি অনুষ্ঠিত হয়।

সংগঠনটির মিডিয়া বিষয়ক সম্পাদক মাওলানা সাইফুল ইসলাম সংবাদটি  দৈনিক বনলতাকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

দোয়া মাহফিলে আলোচকরা বলেন, আল্লামা আব্দুস সালাম চাটগামী রহ. আমাদের সকলের প্রিয় একজন বুজুরগী। তিনি আমাদের ছায়ার মতোই ছিলেন। ইতিপূর্বে আল্লামা শাহ আহমদ শফী রহ.,আল্লামা জুনাইদ বাবুনগরী রহ. আমাদেরকে ছেড়ে  চির বিদায় নিয়েছেন । তার ইন্তেকালের ২০ দিনের মাথায় আল্লামা চাটগামী রহ ও আমাদেরকে ছেড়ে চলে গেলেন । হুজুরের ইন্তেকালে আমরা অভিভাবক হারা হয়ে গেছি। স্বল্প সময়ের ভিতর আমাদের রাহবারদের হারিয়ে আমরা বাকরুদ্ধ।

বক্তারা বলেন , ওলামায়ে দেওবন্দ তথা আকাবীরদের ধারাবাহিকতায় আল্লামা আব্দুস সালাম চাটগামী (রহ.) ও একি আদর্শ প্রতিষ্ঠার চেষ্টা করে গেছেন। তার রেখে যাওয়া আদর্শগুলো বাস্তবায়ন করা বর্তমান তাওহীদি জনতা বিশেষত ওলামায়ে কেরামের নৈতিক কর্তব্য।

আল্লামা আব্দুস সালাম চাটগামী রহ. শুধু একটি নামই নয়,একটি প্রতিষ্ঠান, একটি আদর্শ ,একটি ইতিহাস। যিনি ছিলেন একাধারে শায়খুল হাদীস, লিখক,গবেষক,আলোচক,আমিরে হেফাজত,সর্বোপরি গোটা মুসলিম জাতীর রাহবার,আল্লাহ তায়ালা তাঁকে জান্নাতুল ফেরদৌসের আ’লা মাকাম দান করুন। আল্লামা চাটগামী রহ. এর ইন্তেকালে বিশাল এক ইতিহাসের পরিসমাপ্তি ঘটেছে। মুসলিম উম্মাহ হারিয়েছে দ্বীনের জন্য নিবেদিতপ্রাণ। তাঁর মৃত্যুতে ইসলামি অঙ্গনে যে শূণ্যতার সৃষ্টি হয়েছে তা  পূরণ হবার নয়। আল্লামা চাটগামী রহ. চলে গেলেও তাঁর রেখে যাওয়া আদর্শে তিনি যুগের পর যুগ অমর হয়ে থাকবেন।

সর্বশেষ বক্তারা আরো বলেন, মুফতী আব্দুস সালাম চাটগামী (রহ.) চিঠির উত্তরে বলেছিলেন, ‘ যেই (ভূট্টোর) নারী নেতৃত্বের বিরুদ্ধে আমি ফতওয়া দেই, সেই ভূট্টোর অধীনে আমি কিভাবে চাকুরী করতে পারি! সুপ্রিমকোর্টের বিচারপতির এই পদ আমার প্রয়োজন নেই’। আল্লামা মুফতী আব্দুস সালাম চাটগামী রহিমাহুল্লাহু ছিলেন পদ-পদবী ও দুনিয়া বিমুখ নিভৃতচারী একজন ফকিহ, আল্লাহর ওলী। আল্লাহ তায়া’লা হযরতকে জান্নাতে উঁচু মাকাম দান করুন।

আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনটির সভাপতি মাওলানা বশির আহমাদ। সাধারণ সম্পাদক মাওলানা শফিকুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক হাফেজ মাওলানা সরওয়ার হুসাইন, মাওলানা সাইফুল ইসলাম, মাওলানা জুনাইদ আল হাবিব, মাওলানা ফয়জুল্লাহ, মাওলানা আক্তারুজ্জামান, মাওলানা আমির খসরু, মাওলানা আবু তালহা সুরুজ, মাওলানা জামাল উদ্দিন সহ সংগঠনের সকল নেতৃবৃন্দ।

উল্লেখ্য যে, গত (৮ সেপ্টেম্বর) বুধবার সকাল ১০টায় হাটহাজারী মাদরাসার শুরা বৈঠক চলছিলো।শুরার বৈঠকে হাটহাজারী মাদরাসার মহাপরিচালক হিসেবে আল্লামা চাটগামীকে নিয়োগ দেয়া হয়। এ দায়িত্ব আনুষ্ঠানিকভাবে বুঝিয়ে দিতে শুরায় আংশগ্রহন করতে ডেকে পাঠানো হয়। এর পরপরই সাড়ে ১১টার দিকে হঠাৎ অজ্ঞান হয়ে যান। অ্যাম্বুলেন্স যোগে স্থানীয় হাটহাজারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। একই দিনে রাত ১১টায় হাটহাজারী মাদরাসা মাঠে জানাযা নামাজ শেষে ‘মাকাবারায়ে জামিয়া’তে দাফন করা হয়।