সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৩ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

 জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধনে গুরুদাসপুরের দুই ইউনিয়ন জাতিয় পর্যায়ে শ্রেষ্ট

  • Reporter Name
  • Update Time : ০৪:৪৭:২৫ অপরাহ্ন, শনিবার, ২ অক্টোবর ২০২১
  • ৪৬ Time View

গুরুদাসপুর (নাটোর) প্রতিনিধি.

জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধনে বাংলাদেশের মধ্যে গুরুদাসপুরের ধারাবারিষা ও বিয়াঘাট ইউনিয়ন পরিষদ জাতিয় পর্যায়ে শ্রেষ্ট হয়েছে। সফলতার এই স্বীকৃতি দিয়েছে স্থানীয় সরকার বিভাগ। ৩০ সেপ্টেম্বর ৬ ক্যাটাগরিতে শ্রেষ্টত্বের এই ঘোষণা দেয় স্থানীয় সরকার বিভাগ।

জাতীয় জন্ম ও মৃত্যু দিবস-২০২১ উপলক্ষে ঢাকায় এই দুই ইউনিয়কে পুরস্কার দেওয়া হবে আগামী ৬ অক্টোবর। ইউপির পক্ষ থেকে ওই পুরস্কার গ্রহন করবেন ধারাবারিষা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল মতিন ও বিয়াঘাটের প্রভাষক মো. মোজাম্মেল হোসেন।


স্থানীয় সরকার বিভাগ সূত্রে জানাগেছে, গত এক বছরে ইউপি, সিটিকরপোরেশন, পৌরসভা, ক্যান্টনমেন্ট বোর্ড, দূতাবাস ও প্রশাসনিক বিভাগে জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধন কার্যক্রম চলেছে। এসব ক্যাটাগরির প্রতিটি প্রতিষ্ঠানকে এই সফলতার স্বীকৃতি সরূপ সম্মননা স্বারক দেওয়া হবে। এরমধ্যে সারা দেশের সব ইউপির মধ্যে গুরুদাসপুরের দুই ইউনিয়ন পরিষদ এই সফলতা অর্জন করেছে।

গুরুদাসপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. তমাল হোসেন বলেন, গুরুদাসপুর উপজেলায় জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধনের জন্য ভার্চ্যুয়াল সভা থেকে শুরু করে উপজেলা প্রশাসন ব্যপক তৎপর ছিল। তাছাড়া সংশ্লিষ্ট চেয়ারম্যান ও সচিবরা অক্লান্ত পরিশ্রম করেছেন। নাটোর জেলা প্রশাসক শামীম আহম্মেদ প্রতিটি ইউনিয়নে গিয়ে অক্লান্ত পরিশ্রম করেছেন। তারই ফলশ্রুতিতে গুরুদাসপুরের এই দুই ইউনিয়ন জাতীয় পর্যায়ে শ্রেষ্ট হয়েছে। এটি গুরুদাসপুরবাসীর জন্য যেমন গর্বের তেমনি আমিও গর্বিত। আমি নিজেও বিভিন্ন কাজের স্বীকৃতি পেয়েছি। স্বীকৃতি ভালো কাজ করার অনুপ্রেরনা যোগায়।

Tag :
Popular Post

 জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধনে গুরুদাসপুরের দুই ইউনিয়ন জাতিয় পর্যায়ে শ্রেষ্ট

Update Time : ০৪:৪৭:২৫ অপরাহ্ন, শনিবার, ২ অক্টোবর ২০২১

গুরুদাসপুর (নাটোর) প্রতিনিধি.

জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধনে বাংলাদেশের মধ্যে গুরুদাসপুরের ধারাবারিষা ও বিয়াঘাট ইউনিয়ন পরিষদ জাতিয় পর্যায়ে শ্রেষ্ট হয়েছে। সফলতার এই স্বীকৃতি দিয়েছে স্থানীয় সরকার বিভাগ। ৩০ সেপ্টেম্বর ৬ ক্যাটাগরিতে শ্রেষ্টত্বের এই ঘোষণা দেয় স্থানীয় সরকার বিভাগ।

জাতীয় জন্ম ও মৃত্যু দিবস-২০২১ উপলক্ষে ঢাকায় এই দুই ইউনিয়কে পুরস্কার দেওয়া হবে আগামী ৬ অক্টোবর। ইউপির পক্ষ থেকে ওই পুরস্কার গ্রহন করবেন ধারাবারিষা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল মতিন ও বিয়াঘাটের প্রভাষক মো. মোজাম্মেল হোসেন।


স্থানীয় সরকার বিভাগ সূত্রে জানাগেছে, গত এক বছরে ইউপি, সিটিকরপোরেশন, পৌরসভা, ক্যান্টনমেন্ট বোর্ড, দূতাবাস ও প্রশাসনিক বিভাগে জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধন কার্যক্রম চলেছে। এসব ক্যাটাগরির প্রতিটি প্রতিষ্ঠানকে এই সফলতার স্বীকৃতি সরূপ সম্মননা স্বারক দেওয়া হবে। এরমধ্যে সারা দেশের সব ইউপির মধ্যে গুরুদাসপুরের দুই ইউনিয়ন পরিষদ এই সফলতা অর্জন করেছে।

গুরুদাসপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. তমাল হোসেন বলেন, গুরুদাসপুর উপজেলায় জন্ম ও মৃত্যু নিবন্ধনের জন্য ভার্চ্যুয়াল সভা থেকে শুরু করে উপজেলা প্রশাসন ব্যপক তৎপর ছিল। তাছাড়া সংশ্লিষ্ট চেয়ারম্যান ও সচিবরা অক্লান্ত পরিশ্রম করেছেন। নাটোর জেলা প্রশাসক শামীম আহম্মেদ প্রতিটি ইউনিয়নে গিয়ে অক্লান্ত পরিশ্রম করেছেন। তারই ফলশ্রুতিতে গুরুদাসপুরের এই দুই ইউনিয়ন জাতীয় পর্যায়ে শ্রেষ্ট হয়েছে। এটি গুরুদাসপুরবাসীর জন্য যেমন গর্বের তেমনি আমিও গর্বিত। আমি নিজেও বিভিন্ন কাজের স্বীকৃতি পেয়েছি। স্বীকৃতি ভালো কাজ করার অনুপ্রেরনা যোগায়।