বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৫ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

গাইবান্ধায় ছাত্রলীগ নেতা রকি হত্যা মামলার এজাহারভুক্ত আসামি  ঢাকা থেকে গ্রেফতার

  • Reporter Name
  • Update Time : ০৯:০৭:২৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ৪ অক্টোবর ২০২১
  • ২৩ Time View

গাইবান্ধা প্রতিনিধি
গাইবান্ধার ফুলছড়ি উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আশিকুর রহমান রকি হত্যা মামলার এজাহারভুক্ত ২ নম্বর আসামি ইমরানকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সেই সাথে এই হত্যা মামলায় সম্পৃক্ত থাকায় রবিন নামে একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃত ইমরান গাইবান্ধা সদর উপজেলার পূর্বপাড়া এলাকার ইলিয়াস মিয়ার ছেলে ও রবিন একই এলাকার হাসু মিয়ার ছেলে। এনিয়ে এই মামলায় এজাহার নামীয় দুইজনসহ মোট সাত জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সোমবার দুপুরে গাইবান্ধার পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে ইমরান ও রবিনকে গ্রেফতারের কথা জানান পুলিশ সুপার তৌহিদুল ইসলাম।
পুলিশ সুপার জানান, এজাহার নামীয় আসামী ইমরানকে রোববার (৩ অক্টোবর) ঢাকার যাত্রাবাড়ী এলাকার এক লোহা গলানোর কারখানা থেকে গ্রেফতার করা হয়। কারখানায় ইমরান নিজের নাম পরিবর্তন করে বাধন নামে কাজ করছিলো। ইমরানকে গ্রেফতারের পর তাকে জিজ্ঞাসাবাদে ঘটনার সাথে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ ভাবে জড়িত থাকায় রবিন নামে আর একজনকে গ্রেফতার করা হয়। এই দু’জন আসামীর কাছ থেকে পুলিশ অনেক তথ্য পেয়েছেন বলে জানান তিনি। তিনি আরও বলেন,‘আলোচিত এই হত্যাকান্ড কি কারণে ঘটেছে এবং কেন করা হয়েছে পুলিশ তা জেনেছে তবে তদন্তে স্বার্থে এখনই বলা সম্ভব নয় বলে জানান তিনি।
গত প্রায় তিন মাস আগে গাইবান্ধা শহরের পূর্বপাড়া এলাকার নবাব আলীর ছেলে কাঞ্চনের সঙ্গে মোটরসাইকেল ওভারটেক নিয়ে রকির বাগবিত-তা হয়। গত ১১ জুলাই রাতে গাইবান্ধার ফুলছড়ি উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আশিকুর রহমান রকি মোটরসাইকেলযোগে ওষুধ কিনে বাড়ি ফেরার পথে শহরের পূর্বপাড়া হালিম বিড়ি কারখানার সামনে পৌঁছালে কাঞ্চন ও তার সঙ্গীরা তাকে পথরোধ করে এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাত করে হত্যা করেন। এ ঘটনায় নিহতের বড়ভাই আতিকুর রহমান সরকার বাদি হয়ে চারজনের নাম উল্লেখ করে ১১ জনের বিরুদ্ধে গাইবান্ধা থানায় মামলা দায়ের করেন।

Tag :
Popular Post

গাইবান্ধায় ছাত্রলীগ নেতা রকি হত্যা মামলার এজাহারভুক্ত আসামি  ঢাকা থেকে গ্রেফতার

Update Time : ০৯:০৭:২৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ৪ অক্টোবর ২০২১

গাইবান্ধা প্রতিনিধি
গাইবান্ধার ফুলছড়ি উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আশিকুর রহমান রকি হত্যা মামলার এজাহারভুক্ত ২ নম্বর আসামি ইমরানকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সেই সাথে এই হত্যা মামলায় সম্পৃক্ত থাকায় রবিন নামে একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃত ইমরান গাইবান্ধা সদর উপজেলার পূর্বপাড়া এলাকার ইলিয়াস মিয়ার ছেলে ও রবিন একই এলাকার হাসু মিয়ার ছেলে। এনিয়ে এই মামলায় এজাহার নামীয় দুইজনসহ মোট সাত জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সোমবার দুপুরে গাইবান্ধার পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে ইমরান ও রবিনকে গ্রেফতারের কথা জানান পুলিশ সুপার তৌহিদুল ইসলাম।
পুলিশ সুপার জানান, এজাহার নামীয় আসামী ইমরানকে রোববার (৩ অক্টোবর) ঢাকার যাত্রাবাড়ী এলাকার এক লোহা গলানোর কারখানা থেকে গ্রেফতার করা হয়। কারখানায় ইমরান নিজের নাম পরিবর্তন করে বাধন নামে কাজ করছিলো। ইমরানকে গ্রেফতারের পর তাকে জিজ্ঞাসাবাদে ঘটনার সাথে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ ভাবে জড়িত থাকায় রবিন নামে আর একজনকে গ্রেফতার করা হয়। এই দু’জন আসামীর কাছ থেকে পুলিশ অনেক তথ্য পেয়েছেন বলে জানান তিনি। তিনি আরও বলেন,‘আলোচিত এই হত্যাকান্ড কি কারণে ঘটেছে এবং কেন করা হয়েছে পুলিশ তা জেনেছে তবে তদন্তে স্বার্থে এখনই বলা সম্ভব নয় বলে জানান তিনি।
গত প্রায় তিন মাস আগে গাইবান্ধা শহরের পূর্বপাড়া এলাকার নবাব আলীর ছেলে কাঞ্চনের সঙ্গে মোটরসাইকেল ওভারটেক নিয়ে রকির বাগবিত-তা হয়। গত ১১ জুলাই রাতে গাইবান্ধার ফুলছড়ি উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আশিকুর রহমান রকি মোটরসাইকেলযোগে ওষুধ কিনে বাড়ি ফেরার পথে শহরের পূর্বপাড়া হালিম বিড়ি কারখানার সামনে পৌঁছালে কাঞ্চন ও তার সঙ্গীরা তাকে পথরোধ করে এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাত করে হত্যা করেন। এ ঘটনায় নিহতের বড়ভাই আতিকুর রহমান সরকার বাদি হয়ে চারজনের নাম উল্লেখ করে ১১ জনের বিরুদ্ধে গাইবান্ধা থানায় মামলা দায়ের করেন।