লালপুরে ভুয়া নিয়োগপত্র দিয়ে ১২ লাখ টাকা আত্মসাৎ, গ্রেপ্তার ২

মোঃ মাজেম আলীমোঃ মাজেম আলী
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৫:৪৩ PM, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২২

বনলতা প্রতিবেদক লালপুর. নাটোরের লালপুরে সেনাবাহিনীর ভুয়া নিয়োগপত্র দিয়ে প্রায় ১২ লাখ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। গতকাল মঙ্গলবার রাতে উপজেলার ওয়ালিয়া ইউনিয়নের ধুপাইল বাজার থেকে তাঁদের গ্রেপ্তার করা হয়। আজ বুধবার তাঁদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

গ্রেপ্তার দুজন হলেন—লালপুরের ফুলবাড়ি গ্রামের মৃত রমিজ উদ্দিনের ছেলে রোকন সরকার (৩৭) ও বাগাতিপাড়ার ডুমরাই সারদিয়ার গ্রামের ফজলুর রহমানের ছেলে আশিক আলী (২১)।
র‌্যাবের নাটোর ক্যাম্প সূত্রে জানা যায়, ভুক্তভোগী দুই তরুণের অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে রোকন সরকার ও আশিক আলীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ সময় তাঁদের কাছ থেকে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর দুটি ভুয়া নিয়োগপত্র, মুঠোফোন, সিমকার্ড ও মেমোরি কার্ড জব্দ করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেপ্তার দুজন জানিয়েছেন, তাঁরা অর্থ হাতিয়ে নেওয়ার জন্য কৌশলে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর বিভিন্ন পদের নিয়োগপত্র কম্পিউটারে বানিয়ে চাকরি প্রত্যাশীদের কাছে সরবরাহ করেন।

প্রতারণার শিকার দুজন হলেন—বাগাতিপাড়ার নন্দীকুজা (চিতলীপাড়া) গ্রামের আবু বক্করের ছেলে সোহান আহম্মেদ (২১) ও আলাল শেখের ছেলে মহাসীন আলী (২২)। তাঁরা দুজন প্রথম আলোকে বলেন, প্রতারক চক্র তাঁদের সেনাবাহিনীতে মেস ওয়েটার ও পাম্প অপারেটর পদে চাকরির আশ্বাস দিয়ে ১১ লাখ ৯৪ হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। তাদের দেওয়া ভুয়া নিয়োগপত্র নিয়ে চাকরিতে যোগ দিতে যান তাঁরা। তখন জালিয়াতির ঘটনা ধরা পড়ে। পরে তাঁরা বিষয়টি র‌্যাবকে জানান।

র‌্যাবের নাটোর ক্যাম্পের কোম্পানি অধিনায়ক অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফরহাদ হোসেন বলেন, ধুপইল বাজারের পাশেই কাদিরাবাদ ক্যান্টনমেন্ট। সেখানে অনেকে নিয়োগ পরীক্ষায় অংশ নিতে আসেন। সেই সুবাদে ধুপইল বাজারে অবস্থান নিয়ে প্রতারক চক্র প্রতারণার ফাঁদ পাতে। তারা আসল নিয়োগপত্র স্ক্যান করে জাল নিয়োগপত্র তৈরি করে। এই চক্রের অন্য সদস্যদের ধরতে অভিযান অব্যাহত থাকবে।

বাগাতিপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সিরাজুল ইসলাম বলেন, এ ঘটনায় থানায় প্রতারণার অভিযোগে মামলা হয়েছে। গ্রেপ্তার দুজনকে আদালতের মাধ্যমে নাটোর কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :