শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ১৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

রাজশাহীর আত্মসমর্পনকারী ৫৭ চরমপন্থী পেলেন সাড়ে ২৮ লক্ষ টাকা

  • Reporter Name
  • Update Time : ১১:৩২:৩৪ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৮ মে ২০২০
  • ৯২ Time View

নিজস্ব প্রতিবেদক রাজশাহী.

রাজশাহীতে আত্মসমর্পনকারী ৫৭ চরমপন্থীর মাঝে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আর্থিক অনুদানের চেক বিতরণ করা হয়েছে। আজ সোমবার দুপুরে রাজশাহী জেলা পুলিশের উদ্যোগে পুলিশ লাইন্সে ৫৭ চরমপন্থীর প্রত্যেকের হাতে ৫০ হাজার টাকার চেক তুলে দেওয়া হয়। রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন ও রাজশাহী-২(সদর) আসনের সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা তাদের হাতে এই চেক তুলে দেন।
আত্মসমর্পনকারী চরমপন্থীরা স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসায় তাদের ধন্যবাদ জানান মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন। মেয়র বলেন, সমাজের একটি অংশ যেন ভুলপথে থেকে দেশকে বাধাগ্রস্থ না করতে পারে সেজন্য দূরদৃষ্টিসম্পন্ন নেত্রী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে চরমপন্থীদের পুর্নবাসন করা হয়।
মেয়র আরো বলেন, করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলা প্রধানমন্ত্রী বিভিন্নক্ষেত্রে প্রণোদনা ঘোষণা দিয়েছেন। দেশের ৫০ লাখ পরিবারকে আর্থিক সহায়তা দিচ্ছে সরকার। রাজশাহীতে ৫০ হাজার পরিবার প্রত্যেকে ২৫০০ টাকা আর্থিক সহায়তা পাচ্ছেন। দেশের অর্থনীতি যেন বেশি ক্ষতিগ্রস্থ না হয়, সেসজ্য বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। প্রধানমন্ত্রী যেসব পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন, সেগুলো বাস্তবায়নে মাধ্যমে করোনা সংকট কাটিয়ে উঠে দেশ আগামীতে অনন্য উচ্চতায় পৌছে যাবে। আর এই কাজে সবাই সামিল হবেন।
রাজশাহী সদর আসনের সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা বলেন, জন্মের পর সব মানুষ সঠিক পথে থাকবে তার গ্যারান্টি নাই। এতোদিন এই মানুষগুলো অন্ধকার জগতের মানুষ হিসেবে বিবেচিত হতেন। এখন আর কেউ আমাদের জাতীয় আদর্শের বাইরে নন। এখন আর আত্মসমর্পণকারীদের পেছনে ফিরে তাকানোর সুযোগ নেই। সবাই নিজ নিজ জায়গা থেকে উন্নয়ন কর্মকা-ে নিজেকে সম্পৃক্ত করবেন।

ডিআইজি বলেন, এ.কে.এম হাফিজ আক্তার আত্মসমর্পনকারী সকলের দিকে আইনশৃংখলা বাহিনীর বিশেষ নজর আছে। তারা সবাই সর্বদা গোয়েন্দা নজরদারীতে আছেন। কেউ অন্যপথে পা বাড়ালেই কঠোর শাস্তির আওতায় আনা হবে। তিনি অনুদান প্রাপ্তদের টাকা নষ্ট না করে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র ব্যবসা করার জন্য আহবান জানানা। সেইসাথে ভাল মানুষ হয়ে দেশর উন্নয়নে কাজে লাগতে পরামর্ম দেন তিনি। সেইসাখে করোনা ভাইরাস থেকে মুক্ত ও নিরাপদ থাকতে সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখার আহবান জানান। তিনি আরো বলেন, আসছে ঈদ উপলক্ষে বাহিরের কোন মানুষ যেন শহরে প্রবেশ করতে না পারে বা অন্য জেলার লোক আরেক জেলায় যেত না পার তার জন্য আইনশৃংখলা বাহিনী কঠোর নজরদারী করবে। শুধুমাত্র মালবাহী বাহন ছাড়া অন্য কোন বাহন কোনভাবেই এক জেলা থেকে অন্য জেলায় প্রবেশ করতে দেয়া হবেনা বলে তিনি। শেষে করোনা ভাইরাস থেকে নিরাপদে থাকতে উপস্থিত সকল সাংবাদিকদের পিপিআই প্রদান করেন।
অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন পুলিশের রাজশাহী রেঞ্জের উপ-মহাপরিদর্শক (ডিআইজি) এ.কে.এম হাফিজ আক্তার, বিপিএম (বার), জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা সংস্থার রাজশাহী অঞ্চলের যুগ্ম পরিচালক জহির উদ্দিন ও জেলা প্রশাসক হামিদুল হক। সভাপতি হিসেবে স্বাগত বক্তব্য দেন জেলা পুলিশ সুপার শহিদুল্লাহ, বিপিএম,পিপিএম। অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন পূর্ব বাংলা কমিউনিস্ট পার্টি এমএল লাল পতাকার রাজশাহী, নাটোর, নওগাঁ ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ অঞ্চলের প্রচার সম্পাদক আবদুর রাজ্জাক বাবু ওরফে আর্ট বাবু।
উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ৯ এপ্রিল পাবনাতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল এমপি’র নিকট আরো ৫৩৯ জনের সঙ্গে রাজশাহীর এই ৫৭ জন চরমপন্থী সদস্য আত্মসমর্পণ করেন। এরপর তারা সরকারের তরফ থেকে এক লাখ টাকা করে আর্থিক অনুদান পান। বতর্মানে করোনা পরিস্থিতিতে রাজশাহীর ৫৭ চরমপন্থী সদস্য আরো ৫০ হাজার টাকা করে প্রধানমন্ত্রীর অনুদান পেলেন।

Tag :
Popular Post

রাজশাহীর আত্মসমর্পনকারী ৫৭ চরমপন্থী পেলেন সাড়ে ২৮ লক্ষ টাকা

Update Time : ১১:৩২:৩৪ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৮ মে ২০২০

নিজস্ব প্রতিবেদক রাজশাহী.

রাজশাহীতে আত্মসমর্পনকারী ৫৭ চরমপন্থীর মাঝে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আর্থিক অনুদানের চেক বিতরণ করা হয়েছে। আজ সোমবার দুপুরে রাজশাহী জেলা পুলিশের উদ্যোগে পুলিশ লাইন্সে ৫৭ চরমপন্থীর প্রত্যেকের হাতে ৫০ হাজার টাকার চেক তুলে দেওয়া হয়। রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন ও রাজশাহী-২(সদর) আসনের সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা তাদের হাতে এই চেক তুলে দেন।
আত্মসমর্পনকারী চরমপন্থীরা স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসায় তাদের ধন্যবাদ জানান মেয়র খায়রুজ্জামান লিটন। মেয়র বলেন, সমাজের একটি অংশ যেন ভুলপথে থেকে দেশকে বাধাগ্রস্থ না করতে পারে সেজন্য দূরদৃষ্টিসম্পন্ন নেত্রী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে চরমপন্থীদের পুর্নবাসন করা হয়।
মেয়র আরো বলেন, করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলা প্রধানমন্ত্রী বিভিন্নক্ষেত্রে প্রণোদনা ঘোষণা দিয়েছেন। দেশের ৫০ লাখ পরিবারকে আর্থিক সহায়তা দিচ্ছে সরকার। রাজশাহীতে ৫০ হাজার পরিবার প্রত্যেকে ২৫০০ টাকা আর্থিক সহায়তা পাচ্ছেন। দেশের অর্থনীতি যেন বেশি ক্ষতিগ্রস্থ না হয়, সেসজ্য বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। প্রধানমন্ত্রী যেসব পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন, সেগুলো বাস্তবায়নে মাধ্যমে করোনা সংকট কাটিয়ে উঠে দেশ আগামীতে অনন্য উচ্চতায় পৌছে যাবে। আর এই কাজে সবাই সামিল হবেন।
রাজশাহী সদর আসনের সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা বলেন, জন্মের পর সব মানুষ সঠিক পথে থাকবে তার গ্যারান্টি নাই। এতোদিন এই মানুষগুলো অন্ধকার জগতের মানুষ হিসেবে বিবেচিত হতেন। এখন আর কেউ আমাদের জাতীয় আদর্শের বাইরে নন। এখন আর আত্মসমর্পণকারীদের পেছনে ফিরে তাকানোর সুযোগ নেই। সবাই নিজ নিজ জায়গা থেকে উন্নয়ন কর্মকা-ে নিজেকে সম্পৃক্ত করবেন।

ডিআইজি বলেন, এ.কে.এম হাফিজ আক্তার আত্মসমর্পনকারী সকলের দিকে আইনশৃংখলা বাহিনীর বিশেষ নজর আছে। তারা সবাই সর্বদা গোয়েন্দা নজরদারীতে আছেন। কেউ অন্যপথে পা বাড়ালেই কঠোর শাস্তির আওতায় আনা হবে। তিনি অনুদান প্রাপ্তদের টাকা নষ্ট না করে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র ব্যবসা করার জন্য আহবান জানানা। সেইসাথে ভাল মানুষ হয়ে দেশর উন্নয়নে কাজে লাগতে পরামর্ম দেন তিনি। সেইসাখে করোনা ভাইরাস থেকে মুক্ত ও নিরাপদ থাকতে সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখার আহবান জানান। তিনি আরো বলেন, আসছে ঈদ উপলক্ষে বাহিরের কোন মানুষ যেন শহরে প্রবেশ করতে না পারে বা অন্য জেলার লোক আরেক জেলায় যেত না পার তার জন্য আইনশৃংখলা বাহিনী কঠোর নজরদারী করবে। শুধুমাত্র মালবাহী বাহন ছাড়া অন্য কোন বাহন কোনভাবেই এক জেলা থেকে অন্য জেলায় প্রবেশ করতে দেয়া হবেনা বলে তিনি। শেষে করোনা ভাইরাস থেকে নিরাপদে থাকতে উপস্থিত সকল সাংবাদিকদের পিপিআই প্রদান করেন।
অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন পুলিশের রাজশাহী রেঞ্জের উপ-মহাপরিদর্শক (ডিআইজি) এ.কে.এম হাফিজ আক্তার, বিপিএম (বার), জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা সংস্থার রাজশাহী অঞ্চলের যুগ্ম পরিচালক জহির উদ্দিন ও জেলা প্রশাসক হামিদুল হক। সভাপতি হিসেবে স্বাগত বক্তব্য দেন জেলা পুলিশ সুপার শহিদুল্লাহ, বিপিএম,পিপিএম। অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন পূর্ব বাংলা কমিউনিস্ট পার্টি এমএল লাল পতাকার রাজশাহী, নাটোর, নওগাঁ ও চাঁপাইনবাবগঞ্জ অঞ্চলের প্রচার সম্পাদক আবদুর রাজ্জাক বাবু ওরফে আর্ট বাবু।
উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ৯ এপ্রিল পাবনাতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল এমপি’র নিকট আরো ৫৩৯ জনের সঙ্গে রাজশাহীর এই ৫৭ জন চরমপন্থী সদস্য আত্মসমর্পণ করেন। এরপর তারা সরকারের তরফ থেকে এক লাখ টাকা করে আর্থিক অনুদান পান। বতর্মানে করোনা পরিস্থিতিতে রাজশাহীর ৫৭ চরমপন্থী সদস্য আরো ৫০ হাজার টাকা করে প্রধানমন্ত্রীর অনুদান পেলেন।