বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ৫ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ভারতের দাবি, কড়া অবস্থান নিতেই সুর নরম করেছে চীন

  • Reporter Name
  • Update Time : ০৭:৪০:০৮ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৮ মে ২০২০
  • ৮৫ Time View

বনলতা নিউজ ডেস্ক.

লাদাখ সীমান্তে ভারত সেনা সমাবেশ বাড়ানোর পরপরই সুর নরম করে চীন শান্তির পতাকা ওড়াতে চাচ্ছে বলে দাবি করেছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম।

বৃহস্পতিবার কলকাতাভিত্তিক দৈনিক সংবাদ প্রতিদিনের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ভারত ও চীনের মধ্যে অনেক সম্ভাবনা রয়েছে এবং এ দু’টি দেশ পরস্পরের জন্য বিপজ্জনক নয় বলে মন্তব্য করেছেন নয়াদিল্লিতে নিযুক্ত চীনা রাষ্ট্রদূত সান ওয়েইডং।

তিনি বলেছেন, বিক্ষিপ্তভাবে যে মতবিরোধ তৈরি হয়েছে তা যেন দুই দেশের মধ্যে সার্বিক দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কে প্রভাব না ফেলে, সেটা সবার জন্যই মঙ্গলজনক হবে।

এছাড়া, চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ঝাও লিচিয়ান বলেছেন, সীমান্তে সামগ্রিক পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে এবং আলোচনার মাধ্যমেই সব সমস্যার সমাধান সম্ভব।

সংবাদমাধ্যমটির দাবি, চীন সুর নরম করলেও ভারত এখনও শক্ত অবস্থানেই রয়েছে। দেশটির সেনাপ্রধান মনোজ মুকুন্দ নারাভানে সেনাবাহিনীর উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের সঙ্গে জরুরি বৈঠক করেছেন।

লাদাখের গালওয়ান উপত্যকার চূড়ান্ত নিয়ন্ত্রণ রেখা (এলএসি) বরাবর চীন হাজার পাঁচেক সেনা মোতায়েন করেছে এবং তিব্বতের বিমানঘাঁটির শক্তিও বাড়ানো হচ্ছে, সেকথা মাথায় রেখেই কূটনৈতিক পথে সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করা হলেও এলএসি বরাবর পাল্টা সামরিক তৎপরতা থামিয়ে দেয়া হবে না বলেই বৈঠকে আলোচনা হয়েছে। ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নির্দেশেই তারা কড়া অবস্থানে রয়েছে বলে জানানো হয়েছে।

Tag :

ভারতের দাবি, কড়া অবস্থান নিতেই সুর নরম করেছে চীন

Update Time : ০৭:৪০:০৮ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৮ মে ২০২০

বনলতা নিউজ ডেস্ক.

লাদাখ সীমান্তে ভারত সেনা সমাবেশ বাড়ানোর পরপরই সুর নরম করে চীন শান্তির পতাকা ওড়াতে চাচ্ছে বলে দাবি করেছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম।

বৃহস্পতিবার কলকাতাভিত্তিক দৈনিক সংবাদ প্রতিদিনের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ভারত ও চীনের মধ্যে অনেক সম্ভাবনা রয়েছে এবং এ দু’টি দেশ পরস্পরের জন্য বিপজ্জনক নয় বলে মন্তব্য করেছেন নয়াদিল্লিতে নিযুক্ত চীনা রাষ্ট্রদূত সান ওয়েইডং।

তিনি বলেছেন, বিক্ষিপ্তভাবে যে মতবিরোধ তৈরি হয়েছে তা যেন দুই দেশের মধ্যে সার্বিক দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কে প্রভাব না ফেলে, সেটা সবার জন্যই মঙ্গলজনক হবে।

এছাড়া, চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ঝাও লিচিয়ান বলেছেন, সীমান্তে সামগ্রিক পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে এবং আলোচনার মাধ্যমেই সব সমস্যার সমাধান সম্ভব।

সংবাদমাধ্যমটির দাবি, চীন সুর নরম করলেও ভারত এখনও শক্ত অবস্থানেই রয়েছে। দেশটির সেনাপ্রধান মনোজ মুকুন্দ নারাভানে সেনাবাহিনীর উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের সঙ্গে জরুরি বৈঠক করেছেন।

লাদাখের গালওয়ান উপত্যকার চূড়ান্ত নিয়ন্ত্রণ রেখা (এলএসি) বরাবর চীন হাজার পাঁচেক সেনা মোতায়েন করেছে এবং তিব্বতের বিমানঘাঁটির শক্তিও বাড়ানো হচ্ছে, সেকথা মাথায় রেখেই কূটনৈতিক পথে সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করা হলেও এলএসি বরাবর পাল্টা সামরিক তৎপরতা থামিয়ে দেয়া হবে না বলেই বৈঠকে আলোচনা হয়েছে। ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নির্দেশেই তারা কড়া অবস্থানে রয়েছে বলে জানানো হয়েছে।