শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ১৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

নলডাঙ্গায় নৌকা তৈরিতে ব্যস্ত কাঠমিস্ত্রিরা

  • Reporter Name
  • Update Time : ০৯:২৭:৪৩ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ৩০ মে ২০২০
  • ৬৪ Time View
নলডাঙ্গা (নাটোর) প্রতিনিধিঃ
বর্ষাকাল আসন্ন। আর এই বর্ষাকালকে সামনে রেখে বিল এলাকা নামে পরিচিত নাটোরের নলডাঙ্গা উপজেলার বিভিন্ন গ্রাম অঞ্চলের জেলে পাড়ায় চলছে বর্ষাকালের নানান আয়োজন । বিশেষ করে নলডাঙ্গা উপজেলার জেলে সম্প্রদায়ের লোকেরা এখন ব্যস্ত সময় পার করছে জাল বুনানো ও নতুন নৌকা সংগ্রহের নানান কাজে । আর তাই জেলেদের মাছ ধরার কাজে ব্যবহৃত নৌকা তৈরির কাজে ব্যস্ত সময় পার করছে, নলডাঙ্গার গ্রাম অঞ্চলের কাঠমিস্ত্রিরা । বর্ষার সময় জল ভর্তি মাঠে নৌকা ছাড়া মাছ ধরার কোন উপায় থাকে না । নৌকা যেন তখন জেলেদের আশা আকাঙ্ক্ষা আর সংসার চালানোর একমাত্র হাতিয়ার।
নাটোরের নলডাঙ্গা উপজেলার ঝুপদুয়ার গ্রামের কাঠমিস্ত্রি মুন্টু সন্নাসী (৬০) বলেন,সারা বছর সে অন্য কাজে ব্যস্ত থাকলেও বর্ষার এ দুই মাস তাকে ব্যস্ত থাকতে হয় জেলেদের মাছ ধরার নৌকা তৈরির কাজে । চাহিদা মোতাবেক ছোট,বড় বিভিন্ন রকম নৌকা বানানো আর তা সময় মত গ্রাহককে দেয়াটাই থাকে তার একমাত্র লক্ষ । দীর্ঘ প্রায় চল্লিশ বছর ধরে বর্ষাকালে তিনি এভাবেই নৌকা তৈরি করে জেলের চাহিদা মিটিয়ে আসছে ।
মাধনগরের মৃধাপাড়া এলাকার আতাউর খাঁ (৫০) বলেন,আগে ভালো ভালো কাঠ দিয়ে নৌকা তৈরি করা হতো। এখন কড়ই ও বাবলা কাঠ দিয়েই তৈরি করা হয় বেশিরভাগ নৌকা। নৌকা তৈরিতে কাঠ ছাড়াও মাটিয়া তৈল,আলকাতরা, তারকাঁটা,গজাল, পাতাম ইত্যাদি লাগে, যা নৌকাকে দীর্ঘদিন টেকসই রাখে। মাছ আহরণের জন্য একটি নৌকা তৈরিতে মোটামুটি খরচ হয় পাঁচ থেকে সাত হাজার টাকা।
নলডাঙ্গা উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি জহুরুল ইসলাম বলেন, বর্ষার শুরুতে নৌকা তৈরিতে ব্যস্ত সময় পার করে কাঠমিস্ত্রিরা। এক সময় পন্য পরিবহন ও যাতায়াতের একমাত্র মাধ্যম ছিল নলডাঙ্গার বুক চিরে বয়ে চলা বারনই নদী, কিন্তু কয়েক বছর থেকে সেই দৃশ্য তেমন আর চোখে পরে না।
এস এম ফকরুদ্দিন ফুুুটু
নলডাঙ্গা, নাটোর

Tag :
Popular Post

নলডাঙ্গায় নৌকা তৈরিতে ব্যস্ত কাঠমিস্ত্রিরা

Update Time : ০৯:২৭:৪৩ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ৩০ মে ২০২০
নলডাঙ্গা (নাটোর) প্রতিনিধিঃ
বর্ষাকাল আসন্ন। আর এই বর্ষাকালকে সামনে রেখে বিল এলাকা নামে পরিচিত নাটোরের নলডাঙ্গা উপজেলার বিভিন্ন গ্রাম অঞ্চলের জেলে পাড়ায় চলছে বর্ষাকালের নানান আয়োজন । বিশেষ করে নলডাঙ্গা উপজেলার জেলে সম্প্রদায়ের লোকেরা এখন ব্যস্ত সময় পার করছে জাল বুনানো ও নতুন নৌকা সংগ্রহের নানান কাজে । আর তাই জেলেদের মাছ ধরার কাজে ব্যবহৃত নৌকা তৈরির কাজে ব্যস্ত সময় পার করছে, নলডাঙ্গার গ্রাম অঞ্চলের কাঠমিস্ত্রিরা । বর্ষার সময় জল ভর্তি মাঠে নৌকা ছাড়া মাছ ধরার কোন উপায় থাকে না । নৌকা যেন তখন জেলেদের আশা আকাঙ্ক্ষা আর সংসার চালানোর একমাত্র হাতিয়ার।
নাটোরের নলডাঙ্গা উপজেলার ঝুপদুয়ার গ্রামের কাঠমিস্ত্রি মুন্টু সন্নাসী (৬০) বলেন,সারা বছর সে অন্য কাজে ব্যস্ত থাকলেও বর্ষার এ দুই মাস তাকে ব্যস্ত থাকতে হয় জেলেদের মাছ ধরার নৌকা তৈরির কাজে । চাহিদা মোতাবেক ছোট,বড় বিভিন্ন রকম নৌকা বানানো আর তা সময় মত গ্রাহককে দেয়াটাই থাকে তার একমাত্র লক্ষ । দীর্ঘ প্রায় চল্লিশ বছর ধরে বর্ষাকালে তিনি এভাবেই নৌকা তৈরি করে জেলের চাহিদা মিটিয়ে আসছে ।
মাধনগরের মৃধাপাড়া এলাকার আতাউর খাঁ (৫০) বলেন,আগে ভালো ভালো কাঠ দিয়ে নৌকা তৈরি করা হতো। এখন কড়ই ও বাবলা কাঠ দিয়েই তৈরি করা হয় বেশিরভাগ নৌকা। নৌকা তৈরিতে কাঠ ছাড়াও মাটিয়া তৈল,আলকাতরা, তারকাঁটা,গজাল, পাতাম ইত্যাদি লাগে, যা নৌকাকে দীর্ঘদিন টেকসই রাখে। মাছ আহরণের জন্য একটি নৌকা তৈরিতে মোটামুটি খরচ হয় পাঁচ থেকে সাত হাজার টাকা।
নলডাঙ্গা উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি জহুরুল ইসলাম বলেন, বর্ষার শুরুতে নৌকা তৈরিতে ব্যস্ত সময় পার করে কাঠমিস্ত্রিরা। এক সময় পন্য পরিবহন ও যাতায়াতের একমাত্র মাধ্যম ছিল নলডাঙ্গার বুক চিরে বয়ে চলা বারনই নদী, কিন্তু কয়েক বছর থেকে সেই দৃশ্য তেমন আর চোখে পরে না।
এস এম ফকরুদ্দিন ফুুুটু
নলডাঙ্গা, নাটোর