বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ৫ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বড়াইগ্রামে ধর্ষক দপ্তরীর অপসারণের দাবীতে মানববন্ধন

  • Reporter Name
  • Update Time : ১২:৫৫:৪৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ৩১ মে ২০২০
  • ৪৬ Time View

বড়াইগ্রাম (নাটোর) সংবাদদাতা
নাটোরের বড়াইগ্রামে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে কারাগারে থাকা চরগোবিন্দপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দপ্তরী কাম নৈশ প্রহরী ফারুক হোসেনের অপসারণের দাবীতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। রোববার বিদ্যালয়ের সামনে জোনাইল-কয়েন বাজার সড়কের উভয় পাশে এ মানববন্ধনে প্রায় তিন শতাধিক অভিভাবক, শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসী অংশ নেন। মানববন্ধনকালে ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি টিপু সরকার, আওয়ামীলীগ নেতা শ্রী গোপাল চন্দ্র সরকার ও আনিসুর রহমান, জোনাইল ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি মাসুম হোসেন, ছাত্র অভিভাবক বাচ্চু সরকার, ম্যানেজিং কমিটির সদস্য আনোয়ার হোসেন সন্টু, সুরুজ আলী ও রওশনারা বেগম বক্তব্য রাখেন।
এ সময় বক্তারা বলেন, নৈশ প্রহরী ফারুক নিয়োগ পাওয়ার পর থেকেই বিদ্যালয়ের কক্ষে নারী এনে অসামাজিক কার্যকলাপ করাসহ মাদক সেবন ও বিক্রি করে আসছিল। ইতোপূর্বে স্কুলে তার থাকার কক্ষ থেকে মাদকসহ পুলিশের হাতে সে আটক হয়েছিল। এবার বিদ্যালয় বন্ধ থাকার সুবাদে এক তরুণীকে ডেকে এনে ধর্ষণের চেষ্টা করে। পরে স্থানীয়রা তাকে হাতে নাতে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে। এমন চরিত্রহীন দপ্তরী বিদ্যালয়ে থাকলে সেখানে শিক্ষার্থীরাও নিরাপদ নয় দাবী করে অবিলম্বে ফারুককে চাকরী থেকে অপসারণ করাসহ উপযুক্ত বিচারের দাবী জানান তারা।
উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার দুপুরে এক তরুণীকে মোবাইলে বিদ্যালয়ে ডেকে এনে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে দপ্তরী কাম নৈশ প্রহরী ফারুক হোসেনকে গ্রেপ্তার করে কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ।

Tag :

বড়াইগ্রামে ধর্ষক দপ্তরীর অপসারণের দাবীতে মানববন্ধন

Update Time : ১২:৫৫:৪৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ৩১ মে ২০২০

বড়াইগ্রাম (নাটোর) সংবাদদাতা
নাটোরের বড়াইগ্রামে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে কারাগারে থাকা চরগোবিন্দপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দপ্তরী কাম নৈশ প্রহরী ফারুক হোসেনের অপসারণের দাবীতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। রোববার বিদ্যালয়ের সামনে জোনাইল-কয়েন বাজার সড়কের উভয় পাশে এ মানববন্ধনে প্রায় তিন শতাধিক অভিভাবক, শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসী অংশ নেন। মানববন্ধনকালে ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি টিপু সরকার, আওয়ামীলীগ নেতা শ্রী গোপাল চন্দ্র সরকার ও আনিসুর রহমান, জোনাইল ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি মাসুম হোসেন, ছাত্র অভিভাবক বাচ্চু সরকার, ম্যানেজিং কমিটির সদস্য আনোয়ার হোসেন সন্টু, সুরুজ আলী ও রওশনারা বেগম বক্তব্য রাখেন।
এ সময় বক্তারা বলেন, নৈশ প্রহরী ফারুক নিয়োগ পাওয়ার পর থেকেই বিদ্যালয়ের কক্ষে নারী এনে অসামাজিক কার্যকলাপ করাসহ মাদক সেবন ও বিক্রি করে আসছিল। ইতোপূর্বে স্কুলে তার থাকার কক্ষ থেকে মাদকসহ পুলিশের হাতে সে আটক হয়েছিল। এবার বিদ্যালয় বন্ধ থাকার সুবাদে এক তরুণীকে ডেকে এনে ধর্ষণের চেষ্টা করে। পরে স্থানীয়রা তাকে হাতে নাতে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে। এমন চরিত্রহীন দপ্তরী বিদ্যালয়ে থাকলে সেখানে শিক্ষার্থীরাও নিরাপদ নয় দাবী করে অবিলম্বে ফারুককে চাকরী থেকে অপসারণ করাসহ উপযুক্ত বিচারের দাবী জানান তারা।
উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার দুপুরে এক তরুণীকে মোবাইলে বিদ্যালয়ে ডেকে এনে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে দপ্তরী কাম নৈশ প্রহরী ফারুক হোসেনকে গ্রেপ্তার করে কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ।