শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ১৯ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

বিশ্ব জুড়ে একের পর এক মহামারী ধেয়ে আসছে !

  • Reporter Name
  • Update Time : ০৫:৩৫:০৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ১০ জুন ২০২০
  • ৮৭ Time View

বনলতা নিউজ ডেস্ক.

করোনাভাইরাসের পর একের পর এক মহামারি ফিরে আসতে পারে বাংলাদেশসহ প্রায় গোটা বিশ্বেই। ফিরে আসতে চলেছে পোলিও, হাম, রুবেলা, কলেরা, ডিপথেরিয়া ও ডায়ারিয়ার মতো ভয়ঙ্কর সংক্রামক ব্যাধিগুলো।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা, ইউনিসেফ এবং গরিব দেশগুলিতে টিকাকরণ কর্মসূচির তদারক সংস্থা ‘গ্লোবাল অ্যালায়েন্স ফর ভ্যাকসিন্স অ্যান্ড ইমিউনাইজেশন (গ্যাভি)’-এর সাম্প্রতিক যৌথ সমীক্ষা এই অশনি সংকেত দিয়েছে। জানিয়েছে, বিশ্বজুড়ে করোনা সংক্রমণ ও লকডাউনের জেরে টিকাকরণ কর্মসূচি দারুণ ভাবে ব্যাহত হওয়ার ফলে যে সব রোগ হারিয়ে গিয়েছিল, তাদের ফের জোরালো ভাবে ফিরে আসার উপক্রম হয়েছে। বিপন্ন হয়ে পড়েছে অন্তত আট কোটি শিশুর জীবন। এশিয়ার যে দেশগুলিতে এই আশঙ্কা বেশি, ভারত তার অন্যতম। রয়েছে পাকিস্তান, নেপাল, বাংলাদেশও।

একই আশঙ্কা আফ্রিকায় উগান্ডা, নাইজিরিয়া, চাদ, ইথিওপিয়া, বুরুন্ডি, ক্যামেরুন-সহ বিশ্বের ১২৯টি দরিদ্র ও অল্প আয়ের দেশের শিশুদের ক্ষেত্রে। যে শিশুদের বয়স এক বছরেরও কম।

লকডাউনের জন্য দেশে দেশে টিকাকরণ কর্মসূচি পুরোপুরি থমকে যাওয়ায় অন্তত ৮ কোটি শিশুর পোলিও, হাম, রুবেলা, কলেরা, ডিপথেরিয়া, ডায়ারিয়া-সহ নানা ধরনের জটিল রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা প্রবল হয়ে উঠেছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এবং ইউনিসেফ-এর যৌথ সমীক্ষা অনুযায়ী, করোনা সংক্রমণ ও লকডাউনের জেরে ১২৯টি গরিব ও অল্পবিত্তের দেশের মধ্যে কম করে ৬৮টি দেশে চিকিৎসক বা টিকাকরণ কর্মসূচির মাধ্যমে টিকা দেওয়ার কাজে যথেষ্টই ব্যাঘাত ঘটেছে।

Tag :

বিশ্ব জুড়ে একের পর এক মহামারী ধেয়ে আসছে !

Update Time : ০৫:৩৫:০৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ১০ জুন ২০২০

বনলতা নিউজ ডেস্ক.

করোনাভাইরাসের পর একের পর এক মহামারি ফিরে আসতে পারে বাংলাদেশসহ প্রায় গোটা বিশ্বেই। ফিরে আসতে চলেছে পোলিও, হাম, রুবেলা, কলেরা, ডিপথেরিয়া ও ডায়ারিয়ার মতো ভয়ঙ্কর সংক্রামক ব্যাধিগুলো।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা, ইউনিসেফ এবং গরিব দেশগুলিতে টিকাকরণ কর্মসূচির তদারক সংস্থা ‘গ্লোবাল অ্যালায়েন্স ফর ভ্যাকসিন্স অ্যান্ড ইমিউনাইজেশন (গ্যাভি)’-এর সাম্প্রতিক যৌথ সমীক্ষা এই অশনি সংকেত দিয়েছে। জানিয়েছে, বিশ্বজুড়ে করোনা সংক্রমণ ও লকডাউনের জেরে টিকাকরণ কর্মসূচি দারুণ ভাবে ব্যাহত হওয়ার ফলে যে সব রোগ হারিয়ে গিয়েছিল, তাদের ফের জোরালো ভাবে ফিরে আসার উপক্রম হয়েছে। বিপন্ন হয়ে পড়েছে অন্তত আট কোটি শিশুর জীবন। এশিয়ার যে দেশগুলিতে এই আশঙ্কা বেশি, ভারত তার অন্যতম। রয়েছে পাকিস্তান, নেপাল, বাংলাদেশও।

একই আশঙ্কা আফ্রিকায় উগান্ডা, নাইজিরিয়া, চাদ, ইথিওপিয়া, বুরুন্ডি, ক্যামেরুন-সহ বিশ্বের ১২৯টি দরিদ্র ও অল্প আয়ের দেশের শিশুদের ক্ষেত্রে। যে শিশুদের বয়স এক বছরেরও কম।

লকডাউনের জন্য দেশে দেশে টিকাকরণ কর্মসূচি পুরোপুরি থমকে যাওয়ায় অন্তত ৮ কোটি শিশুর পোলিও, হাম, রুবেলা, কলেরা, ডিপথেরিয়া, ডায়ারিয়া-সহ নানা ধরনের জটিল রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা প্রবল হয়ে উঠেছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এবং ইউনিসেফ-এর যৌথ সমীক্ষা অনুযায়ী, করোনা সংক্রমণ ও লকডাউনের জেরে ১২৯টি গরিব ও অল্পবিত্তের দেশের মধ্যে কম করে ৬৮টি দেশে চিকিৎসক বা টিকাকরণ কর্মসূচির মাধ্যমে টিকা দেওয়ার কাজে যথেষ্টই ব্যাঘাত ঘটেছে।