বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ৫ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

কৃষিকে লাভজনক করতে হলে আম সংগ্রহ বানিজ্যিক ভাবে প্রতিষ্ঠিত করা জরুরী- কৃষিমন্ত্রী

  • Reporter Name
  • Update Time : ০৫:০১:২২ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৪ জুন ২০২০
  • ৬৫ Time View

কৃষিকে লাভজনক করতে হলে এটাকে বাণিজ্যিকভাবে প্রতিষ্ঠিত করা জরুরী: কৃষিমন্ত্রী
নিজস্ব প্রতিবেদক রাজশাহী.

রাজশাহীর গোদাগাড়ীতে অবস্থিত প্রাণ এগ্রো বিজনেস লিমিটেড এর আম সংগ্রহ ও পাল্পিং কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন কৃষি মন্ত্রী কৃষিবিদ ড. আব্দুর রাজ্জাক। আজ শনিবার গোদাগাড়ীর আমানতপুরে নিজ ইন্ডাস্ট্রিতে প্রধান অতিথি হিসেবে ভিডিও কনফারেন্স এর মাধ্যমে এই কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন তিনি। এসময়ে মন্ত্রী তাঁর বক্তব্যে বলেন, কৃষিকে লাভজনক করতে হলে এটাকে বাণিজ্যিকভাবে প্রতিষ্ঠিত করা জরুরী। এজন্য কৃষি প্রক্রিয়াজাতকরণের দিকে গুরুত্ব দিতে হবে।
কৃষি বাণিজ্যিকীকরণের লক্ষ্যে কৃষি প্রক্রিয়াজাত করার জন্য স্থানীয়ভাবে এগ্রো ইন্ডাস্ট্রি গড়ে তুলতে হবে এবং লক্ষ্য অনুযায়ী কাঁচামাল সরবরাহ নিশ্চিত করার জন্য কৃষির উৎপাদন বাড়াতে হবে। কৃষি বিভাগকে আম, টমেটো ও আলুকে ঘিরে কার্যক্রম হাতে নেওয়ার পরামর্শ দেন মন্ত্রী। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন প্রাণ গ্রুপের চেয়ারম্যান হাসান চৌধুরী এবং সঞ্চালনা করেন ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইলিয়াস মৃধা।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তানোর-গোদাগাড়ী আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব ওমর ফারুক চৌধুরী, ভিডিও কলে সংযুক্ত ছিলেন কৃষি মন্ত্রণালয়ের সচিব নাসিরুজ্জামান, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর রাজশাহী অঞ্চলের অতিরিক্ত পরিচালক কৃষিবিদ সুধেন্দ্র নাথ রায়, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর রাজশাহী জেলার উপপরিচালক শামছুল হক, গোদাগাড়ী উপজেলার উপজেলা চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম ও গোদাগাড়ীর উপজেলা কৃষি অফিসার শফিকুল ইসলাম।
সংসদ সদস্য আলহাজ্ব ওমর ফারুক চৌধুরী বলেন ‘গোদাগাড়ীতে আম ও টমেটোর একটি ভালো বাণিজ্যিক সম্ভাবনা রয়েছে। টমেটো উৎপাদনে গোদাগাড়ীর বিশেষ খ্যাতি রয়েছে। গোদাগাড়ীর কৃষকের ভাগ্য উন্নয়নে কৃষির উৎপাদন ও বাণিজ্যিক প্রসারে কৃষি বিভাগ ও স্থানীয় প্রশাসনকে সব সময় কৃষকের পাশে থেকে সহযোগিতা করার আহ্বান জানান তিনি।
আমের বাজারজাতকরণ বিষয়ে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর রাজশাহীর উপপরিচালক শামছুল হক জানান, “বর্তমান মৌসুমে করোনা ভাইরাসের এই পরিস্থিতিতে আম বাজারজাতকরণে যেন কোনো প্রকার বিঘœতা তৈরি না হয় সে জন্য কৃষি বিভাগ সার্বক্ষণিকভাবে প্রস্তুত রয়েছে। আম ব্যবসায়ী, আম বাগানের মালিক, আম পরিবহনের সাথে সংশ্লিষ্ট সকলের সাথে কৃষি বিভাগ সবসময় যোগাযোগ রক্ষা করছে।
যুগান্তকারী পদক্ষেপ হিসেবে ডাক বিভাগের ‘কৃষক বন্ধু ডাকসেবা’র মাধ্যমে উৎপাদিত আম ও লিচু বিনা ভাড়ায় ঢাকার পাইকারি বাজারে পৌঁছে দিতে কৃষি বিভাগ ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষককে সহযোগিতা করছে। বাংলাদেশ রেলওয়ে ম্যাংগো স্পেশাল ট্রেন যোগে রাজশাহী থেকে ঢাকায় কেজিপ্রতি মাত্র ১.১৭ টাকায় আম পরিবহন করছে। দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে রাজশাহী জেলায় আগত আম ব্যবসায়ীদের থাকা-খাওয়ার জন্য স্থানীয় প্রশাসনের সহযোগিতায় আবাসিক হোটেলের ব্যবস্থা করা হয়েছে বলে জানান তিনি।
শেষে সরকারের নির্দেশনা মোতাবেক কৃষি ও কৃষকের স্বার্থে কাজ করে যাওয়ার জন্য কৃষিমন্ত্রী ও স্থানীয় সংসদ সদস্য কৃষি বিভাগের প্রশংসা করেন।

Tag :

কৃষিকে লাভজনক করতে হলে আম সংগ্রহ বানিজ্যিক ভাবে প্রতিষ্ঠিত করা জরুরী- কৃষিমন্ত্রী

Update Time : ০৫:০১:২২ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৪ জুন ২০২০

কৃষিকে লাভজনক করতে হলে এটাকে বাণিজ্যিকভাবে প্রতিষ্ঠিত করা জরুরী: কৃষিমন্ত্রী
নিজস্ব প্রতিবেদক রাজশাহী.

রাজশাহীর গোদাগাড়ীতে অবস্থিত প্রাণ এগ্রো বিজনেস লিমিটেড এর আম সংগ্রহ ও পাল্পিং কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন কৃষি মন্ত্রী কৃষিবিদ ড. আব্দুর রাজ্জাক। আজ শনিবার গোদাগাড়ীর আমানতপুরে নিজ ইন্ডাস্ট্রিতে প্রধান অতিথি হিসেবে ভিডিও কনফারেন্স এর মাধ্যমে এই কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন তিনি। এসময়ে মন্ত্রী তাঁর বক্তব্যে বলেন, কৃষিকে লাভজনক করতে হলে এটাকে বাণিজ্যিকভাবে প্রতিষ্ঠিত করা জরুরী। এজন্য কৃষি প্রক্রিয়াজাতকরণের দিকে গুরুত্ব দিতে হবে।
কৃষি বাণিজ্যিকীকরণের লক্ষ্যে কৃষি প্রক্রিয়াজাত করার জন্য স্থানীয়ভাবে এগ্রো ইন্ডাস্ট্রি গড়ে তুলতে হবে এবং লক্ষ্য অনুযায়ী কাঁচামাল সরবরাহ নিশ্চিত করার জন্য কৃষির উৎপাদন বাড়াতে হবে। কৃষি বিভাগকে আম, টমেটো ও আলুকে ঘিরে কার্যক্রম হাতে নেওয়ার পরামর্শ দেন মন্ত্রী। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন প্রাণ গ্রুপের চেয়ারম্যান হাসান চৌধুরী এবং সঞ্চালনা করেন ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইলিয়াস মৃধা।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন তানোর-গোদাগাড়ী আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব ওমর ফারুক চৌধুরী, ভিডিও কলে সংযুক্ত ছিলেন কৃষি মন্ত্রণালয়ের সচিব নাসিরুজ্জামান, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর রাজশাহী অঞ্চলের অতিরিক্ত পরিচালক কৃষিবিদ সুধেন্দ্র নাথ রায়, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর রাজশাহী জেলার উপপরিচালক শামছুল হক, গোদাগাড়ী উপজেলার উপজেলা চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম ও গোদাগাড়ীর উপজেলা কৃষি অফিসার শফিকুল ইসলাম।
সংসদ সদস্য আলহাজ্ব ওমর ফারুক চৌধুরী বলেন ‘গোদাগাড়ীতে আম ও টমেটোর একটি ভালো বাণিজ্যিক সম্ভাবনা রয়েছে। টমেটো উৎপাদনে গোদাগাড়ীর বিশেষ খ্যাতি রয়েছে। গোদাগাড়ীর কৃষকের ভাগ্য উন্নয়নে কৃষির উৎপাদন ও বাণিজ্যিক প্রসারে কৃষি বিভাগ ও স্থানীয় প্রশাসনকে সব সময় কৃষকের পাশে থেকে সহযোগিতা করার আহ্বান জানান তিনি।
আমের বাজারজাতকরণ বিষয়ে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর রাজশাহীর উপপরিচালক শামছুল হক জানান, “বর্তমান মৌসুমে করোনা ভাইরাসের এই পরিস্থিতিতে আম বাজারজাতকরণে যেন কোনো প্রকার বিঘœতা তৈরি না হয় সে জন্য কৃষি বিভাগ সার্বক্ষণিকভাবে প্রস্তুত রয়েছে। আম ব্যবসায়ী, আম বাগানের মালিক, আম পরিবহনের সাথে সংশ্লিষ্ট সকলের সাথে কৃষি বিভাগ সবসময় যোগাযোগ রক্ষা করছে।
যুগান্তকারী পদক্ষেপ হিসেবে ডাক বিভাগের ‘কৃষক বন্ধু ডাকসেবা’র মাধ্যমে উৎপাদিত আম ও লিচু বিনা ভাড়ায় ঢাকার পাইকারি বাজারে পৌঁছে দিতে কৃষি বিভাগ ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষককে সহযোগিতা করছে। বাংলাদেশ রেলওয়ে ম্যাংগো স্পেশাল ট্রেন যোগে রাজশাহী থেকে ঢাকায় কেজিপ্রতি মাত্র ১.১৭ টাকায় আম পরিবহন করছে। দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে রাজশাহী জেলায় আগত আম ব্যবসায়ীদের থাকা-খাওয়ার জন্য স্থানীয় প্রশাসনের সহযোগিতায় আবাসিক হোটেলের ব্যবস্থা করা হয়েছে বলে জানান তিনি।
শেষে সরকারের নির্দেশনা মোতাবেক কৃষি ও কৃষকের স্বার্থে কাজ করে যাওয়ার জন্য কৃষিমন্ত্রী ও স্থানীয় সংসদ সদস্য কৃষি বিভাগের প্রশংসা করেন।