আবারো অন্যের স্ত্রীর কাছে গিয়ে ধরা খেলেন গুরুদাসপুরের রাজু

বনলতা নিউজ ডেস্ক.বনলতা নিউজ ডেস্ক.
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৯:০৮ PM, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২

গুরুদাসপুর (নাটোর) প্রতিনিধি. গ্রামের সহজ সরল হতদরিদ্র পরিবারের গৃহবধূ নাসিমা (২৬) (ছদ্মনাম)। দরিদ্র শ্রমিকের ঘরে সুখেই চলছিল তাদের সংসার। সেই সুখের সংসারে আগুন ধরিয়েছিলেন গ্রামের প্রভাবশালী দেলু মোল্লার ছেলে রাজু (২৩)। বিয়ের প্রলোভনে একাধিকবার শারীরিক সম্পর্ক করে ধরাও খেয়েছিলেন । সেই ঘটনাকে আড়াল করতে গ্রামের মাতবরদের বিশেষ সুবিধা দিয়ে সালিশও করেছিলেন দেলু মোল্লা ও তার ছেলে রাজু।ওই ঘটনায়৭০ হাজার টাকা জরিমানাও দিয়েছিলেন তিনি।

এসব ঘটনার পরেও আবারো ২৯ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার সন্ধা সাড়ে সাতটার দিকে গৃহবধু নাসিমাকে জরিয়ে ধরে রাজু। এসময় তার চিৎকারে গৃহবধুর স্বামী মনিরুল ও শাশুড়ি মরিয়ম বেগম এগিয়ে গেলে তাদের ধাক্কা দিয়ে পালিয়ে যায় রাজু। পরে গৃহবধু ওই রাতেই বাদি হয়ে গুরুদাসপুর থানায় একটি শ্লীলতাহানী মামলা করলে রাতেই রাজুকে আটক করেন গুরুদাসপুর থানা পুলিশ। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার ধারাবারিষা ইউনিয়নের বিন্যাবাড়ি বাজার এলাকায়।

ভুক্তভোগীর পরিবার সূত্রে জানা যায়, ৩ বছর ধরে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে একাধিকবার শারীরিক সম্পর্ক করেন গ্রামের প্রভাবশালী ধনীর দুলাল রাজু। এ বিষয়ে নাটোর কোর্টে ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছিলেন ওই গৃহবধু। পরে ৭০ হাজার টাকা দিয়ে স্থানীয়ভাবে মিমাংসা করে মামলা তুলে নিয়ে আবারো স্বামী মনিরুলের সংসার শুরু করেন নাসিমা। ইতিমধ্যে তিন মাস পুর্বে বিয়েও করেছেন রাজু। তার পরেও রাজু ওই নাসিমার পিছু লাগে পুনরায়। নাসিমা তাকে নিষেধ করলেও রাজু জোর করে তার ইজ্জত হানির চেষ্টা করে।

সরজমিন গিয়ে গৃহবধূ নাসিমাকে জিজ্ঞাসা করলে তিনি জানান, আমরা গরিব। বাবা ও স্বামী মনিরুল বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী। সে সুযোগে রাজু আবারো গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে আমাকে পিছন দিক থেকে ঝাপটে ধরে বাগানের দিকে নিয়ে যেতে চাইলে আমি চিৎকার করলে আমার স্বামী ও শশুড়ি এসে আমাকে উদ্ধার করে। এসময় আমার স্বামী প্রতিবন্ধী মনিরুলকে ধাক্কা মেরে ফেলে দিয়ে পালিয়ে যায় রাজু। পরে ওই রাতেই গুরুদাসপুর থানায় মামলা করলে ওসি তদন্ত মোঃ মশিউর রহমান ঘটনার সত্যতা পেয়ে রাজুকে আটক করে।

গৃহবধূর স্বামী মনির হোসেন জানান, আমি দিনমজুরি করে অতিকষ্টে সংসার চালাই। একবার ওই ঘটনা মেনে নিয়ে সংসার শুরু করেছিলাম। আবারো রাজু এধরনের ঘটনা ঘটালো। আমি রাজুর এই অপকর্মের বিচার দাবী করছি।

ওই এলাকার রাজিবুল ইসলাম জানান, রাজু এর আগেও এক গৃহবধূর জীবন নষ্ট করেছে। মাঝে মধ্যেই সে মেয়েদের বিরক্ত করে। এসব বলার পরও দেলু মোল্লা তার ছেলেকে শাসন না উল্টো টাকার গরম দেখান।

অভিযুক্ত রাজুর বাবা দেলু মোল্লা জানান, তার ছেলের ভুল করলে তার বিচার হবে। আপনাদের কি?

ধারাবারিষা ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল মতিন জানান, বিষয়টি আমি অবগত নই। তবে এধরনের ঘটনা কেউ ঘটালে তার শাস্তি হওয়া দরকার।

গুরুদাসপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকতা (ওসি) মো. আব্দুল মতিন বলেন, এবিষয়ে মামলা রুজু হয়েছে এবং আসামী রাজুকে গ্রেফতার করে আজ শুক্রবার দুপুর ১২টার দিকে
তাকে নাটোর কোর্টে প্রেরণ করা হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :