রবিবার, ১৯ মে ২০২৪, ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

গুরুদাসপুরে নিখোঁজের একদিন পর পুকুর থেকে স্কুল ছাত্রের মরদহে উদ্ধার

Exif_JPEG_420

নাটোররে গুরুদাসপুরে নিখোঁজরে একদনি পর উপজেলা পরিষদের পিছনের একটি পুকুর থেকে ওবায়দুল্লাহ নামে ৬ বছর বয়সী এক শিশুর মরদহে উদ্ধার হয়েছে। নিহত শিশু ওবায়দুল্লাহ উপজলোর খামারনাচকড়ৈ মহল্লার মোঃ আব্দুল্লাহর ছেলে ও স্থানীয় একটি কিন্ডার গার্ডেনের প্রথম শ্রেণির শিক্ষার্থী ছিল।

স্থানীয় সুত্রে জানাযায়, গতকাল বিকালে শিশু ওবায়দুল্লাহ খেলা উদ্দেশ্যে বাড়ী থেকে বের হয়। এরপর থেকে শিশুটার আর কোন খোঁজ পাওয়া যায় না। অনেক খোঁজাখুজি পর শি ওবায়দুল্লাহকে না পেয়ে এলাকায় মাইকিং করা হয়। আজ শনিবার(৬মার্চ) সকালে গুরুদাসপুর উপজলো পরিষদ কার্যালয়ের পিছনের পুকুরের পানিতে শিশুর মরদহে ভাসতে দেখে এলাকা বাসী পুলিশে খবর দেয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে মরদহেটি উদ্ধার করে।

গুরুদাসপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) উজ্জ্বল হোসেন বলেন, শিশুটির স্বজনদের কোন অভিযোগ না থাকায় শিশুটির মরদেহ করস্থ করার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। তবে এব্যপারে থানায় একটি ইউডি মামলা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারনা করা হচ্ছে শিশুটি প্রায়ই ওই পুকুর ও আশপাশ এলাকায় খেলতে যেত। খেলতে খেলতে হয়তো পুকুরে পড়ে গিয়ে আর উঠতে না পেরে মারা গেছে।

Tag :
About Author Information

Daily Banalata

গুরুদাসপুরে নিখোঁজের একদিন পর পুকুর থেকে স্কুল ছাত্রের মরদহে উদ্ধার

Update Time : ০৩:১৮:৫২ অপরাহ্ন, শনিবার, ৬ এপ্রিল ২০২৪

নাটোররে গুরুদাসপুরে নিখোঁজরে একদনি পর উপজেলা পরিষদের পিছনের একটি পুকুর থেকে ওবায়দুল্লাহ নামে ৬ বছর বয়সী এক শিশুর মরদহে উদ্ধার হয়েছে। নিহত শিশু ওবায়দুল্লাহ উপজলোর খামারনাচকড়ৈ মহল্লার মোঃ আব্দুল্লাহর ছেলে ও স্থানীয় একটি কিন্ডার গার্ডেনের প্রথম শ্রেণির শিক্ষার্থী ছিল।

স্থানীয় সুত্রে জানাযায়, গতকাল বিকালে শিশু ওবায়দুল্লাহ খেলা উদ্দেশ্যে বাড়ী থেকে বের হয়। এরপর থেকে শিশুটার আর কোন খোঁজ পাওয়া যায় না। অনেক খোঁজাখুজি পর শি ওবায়দুল্লাহকে না পেয়ে এলাকায় মাইকিং করা হয়। আজ শনিবার(৬মার্চ) সকালে গুরুদাসপুর উপজলো পরিষদ কার্যালয়ের পিছনের পুকুরের পানিতে শিশুর মরদহে ভাসতে দেখে এলাকা বাসী পুলিশে খবর দেয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে মরদহেটি উদ্ধার করে।

গুরুদাসপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) উজ্জ্বল হোসেন বলেন, শিশুটির স্বজনদের কোন অভিযোগ না থাকায় শিশুটির মরদেহ করস্থ করার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। তবে এব্যপারে থানায় একটি ইউডি মামলা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারনা করা হচ্ছে শিশুটি প্রায়ই ওই পুকুর ও আশপাশ এলাকায় খেলতে যেত। খেলতে খেলতে হয়তো পুকুরে পড়ে গিয়ে আর উঠতে না পেরে মারা গেছে।