নলডাঙ্গায় বিষধর সাপের সেই খামারে অভিযান!

বনলতা নিউজ ডেস্ক.বনলতা নিউজ ডেস্ক.
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০২:০১ AM, ১৩ অগাস্ট ২০২০

 

নলডাঙ্গা(নাটোর)প্রতিনিধিঃ
নাটোরের নলডাঙ্গা উপজেলার বৈদ্যবেলঘরিয়া এলাকায় অবৈধ বিষধর সাপের খামারে যৌথ অভিযান পরিচালনা করে, নলডাঙ্গা উপজেলা প্রশাসন, রাজশাহী বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগ।

বুধবার (১২ আগস্ট) বিকেলে এই অভিযান পরিচালিত হয়। এসময় সাপের খামার থেকে ৪৯ টি বিষধর সাপ,২৯ টি বক্স ৩৬টি ডিম উদ্ধার করা হয়।
বিশেষ করে গোখরো সাপের সংখ্যাই বেশি বলে জানা গেছে।

রাজশাহী বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগ ও বিবিসিএফ সূত্র জানা যায়, উপজেলার বৈদ্যবেলঘরিয়া চৌধুরী পাড়া মাঠে অসংরক্ষিত ভাবে গড়ে তোলা হয়েছে বিষাক্ত সব সাপের খামার।

বৈদ্যবেলঘরিয়া চৌধুরী পাড়া গ্রামের নুরু মোহাম্মদের ছেলে শাহাদৎ হোসন (৩৫) এই সাপের খামারটি গড়ে তোলে। একটি টিন শেটের ঘরে,বৈজ্ঞানিক কোন পদ্ধতি ছাড়াই চলছিল,এই খামারটি। চারিদিকে বন-জঙ্গল আর আবাদি এলাকায় এই খামার। যেখানে খামারি নিজেই জানেন”না কি করে,কি উপায়ে সাবধনতা অবলম্বন করে সাপগুলো ব্যবস্থাপনা করতে হয়। খামারে নেই কোন বিদ্যুতের ব্যবস্থা,নেই কোন কাঁচের সুরক্ষিত বক্স। খামারটিতে ছোট-বড় মিলে মোট ৪৯টি সাপ থাকলেও নেই কোন সঠিক ব্যবস্থাপনা-নেই কোন বৈধ কাগজপত্র।

এ ব্যাপারে রাজশাহী বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগের বন্যপ্রাণী পরিদর্শক জাহাঙ্গাগীর কবির জানান,বিবিসিএফ এর তথ্যের ভিত্তিতে এই অভিযান করা হয়। সাপের খামারটি অবৈধ। অভিযান পরিচালনার পরবর্তী সময়ে ঐ এলাকা নিয়মিত নজরদারিতে রাখা হবে।
এসময় উপস্থিত জনসাধারনের উদ্দেশ্যে বন্যপ্রাণীর ইতিবাচক দিক ও বিবিধ বিষয়ে আলোচনা করা হয়। আমাদের এই প্রয়াস এতদঅঞ্চলে ব্যাপক গণসচেতনতা সৃষ্টি করেছে যা বন্যপ্রাণীর নিরাপদ বাসস্থান ও জীবনযাপনে নিশ্চয়তা প্রদান করবে বলে আমাদের বিশ্বাস।

বিবিসিএফ এর দপ্তর সম্পাদক ফজলে রাব্বী বলেন, বন্যপ্রানী সংরক্ষনে দেশব্যাপী কাজ করছে,বিবিসিএফ এর সদস্যরা। বন্যপ্রানী নিয়ে অবৈধ কার্যকম বন্ধে এমন অভিযান অব্যহত থাকবে।

নলডাঙ্গার উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন,বিবিসিএফ এর তথ্যের ভিত্তিতে নলডাঙ্গা উপজেলার বৈদ্যবেলঘরিয়া চৌধুরীপাড়া গ্রামে লাইসেন্স বিহীন অবৈধ সাপের খামারে অভিযান পরিচলনা করা হয়। নলডাঙ্গা থানা পুলিশের সহায়তায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে বন্যপ্রাণী (সংরক্ষণ ও নিরাপত্তা) আইন, ২০১২ অনুযায়ী মালিককে ৩০,০০০/- জরিমানা দন্ড প্রদান করা হয়। উদ্ধারকৃত ৪৯টি বিষধর সাপ বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ অধিদপ্তরের উপস্থিত কর্মকর্তার নিকট হস্তান্তর করা হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :